বর্ষাকালে ডাকাতির আশঙ্কা রয়েছে : ডিবি প্রধান

প্রকাশিত: ১২:০০ পূর্বাহ্ণ, জুন ২২, ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার : বর্ষাকালে ও বন্যার সময় দেশের বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতির আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) প্রধান এ কে এম হাফিজ আক্তার।
মঙ্গলবার (২১ জুন) দুপুরে রাজধানীর মিন্টো রোডের ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে উত্তরখানের একটি বাসায় ডাকাতির ঘটনার আসামিদের গ্রেফতারের বিষয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, ডাকাতরা এখন অনেক কৌশলী হয়ে গেছে। তারা জানে আমরা তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে তাদের সন্ধান পেয়ে যাবো। তাই তারা কোনো ডিভাইস ব্যবহার করে না। তবে আমরাও বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে তাদের গ্রেফতার করছি। ডাকাতদের অপতৎপরতা কমাতে আমাদের ডিবির টিম দেশের বিভিন্ন এলাকার ডাকাত দলের সরদারদের গ্রেফতার করেছে। ডাকাতি রোধে পুলিশ খুব তৎপর। যেহেতু সামনে বর্ষাকাল, আরও ডাকাতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এছাড়া বন্যা হচ্ছে। সেজন্য ডাকাতি হচ্ছে। তবে এ ব্যাপারে আমরা সচেষ্ট আছি।

তিনি বলেন, বাসে ডাকাতি হওয়াকে কেন্দ্র করে আমরা প্রচুর ডাকাত গ্রেফতার করেছি। এর ফলে গত মে মাসে ডাকাতির কোনো মামলা হয়নি এবং বাসে ডাকাতির ঘটনাও দেখা যায়নি।

সংবাদ সম্মেলনে উত্তরখানের একটি বাসায় ডাকাতির ঘটনার বিষয়ে এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, গত এপ্রিল মাসে রাজধানীর উত্তরখান এলাকায় একটি বাসায় ডাকাতি হয়েছিল। এ ঘটনায় ডাকাত দলটি ওই বাসা থেকে ৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা ও স্বর্ণালংকারসহ মোট ৮ লাখ ৩৭ হাজার ৭৫০ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বাসার মালিক মো. আহসান উদ্দিন বাদী হয়ে উত্তরখান থানায় একটি মামলা করেন। মামলা হওয়ার পর ডিবি উত্তরা বিভাগ তদন্ত শুরু করে।

তিনি বলেন, তদন্তের এক পর্যায়ে গত সোমবার (২০ জুন) গাজীপুরের নোয়াগাঁও থেকে এই ডাকাত দলের চার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ডিবি উত্তরা বিভাগ।

গ্রেফতাররা হলেন- মো. জাকির হোসেন (৩২), মো. সবুজ (৩৪), মো. ওমর (৩০) ও মো. ওসমান গনি স্বপ্ন (৪০)। গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে একটি স্বর্ণের চেইন, নগদ ১৪ হাজার টাকা, একটি চাপাতি, দুটি লিভার, দুইটি সেলাই রেঞ্জ, একটি স্ক্রু ডাইভার ও একটি চাকু জব্দ করা হয়।

তিনি বলেন, গ্রেফতারদের সবার বাড়ি দক্ষিণবঙ্গে। তারা ঢাকার আশপাশে ডাকাতি করে পালিয়ে যেত দক্ষিণবঙ্গে। উত্তরখানের মামলা ছাড়াও গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে আরও একাধিক মামলা রয়েছে।

বাস ডাকাতির পর এখন পর্যন্ত কতজন গ্রেফতার হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে ডিবিপ্রধান বলেন, বাস ডাকাতির ঘটনার পর এখন পর্যন্ত শতাধিক ডাকাত গ্রেফতার করা হয়েছে। আমরা দেখেছি, সারাদিন ফুডপান্ডায় ডেলিভারি করে বা ভ্যান চালায়। আর রাতে ডাকাতি করে বেড়ায়।