বাগেরহাটে গার্মেন্টস কর্মীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, মূলহোতাসহ গ্রেফতার ৮

প্রকাশিত: ১০:১০ অপরাহ্ণ, মে ৯, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক ; বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায় গার্মেন্টস নারী কর্মীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় মূলহোতাসহ ৮ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

রবিবার সন্ধ্যায় মোংলা ইপিজেডের একটি বিদেশী গার্মেন্টসে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয় ওই পোষাক শ্রমিক। ঘটনার পরপরই ওই তরুনীর মা র‌্যাবকে জানালে রামপাল উপজেলার উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে সোমবার ভোরে মূলহোতাসহ ৮ ধর্ষকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, দলবদ্ধ ধর্ষনের মূলহোতা মো. আবুল কালাম আজাদ শুকুর (২৪), মো. আসলাম শেখ (২২), মো. জনি শেখ (১৮), মো. মারুফ বিল্লা (২২), মো. হাসান শেখ (২০), মো. রাসেল শেখ (২২. মো. হোসেন গাজী (১৮) ও মো. রাজু শেখ (২৪)। এদের সকলের বাড়ী বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায়।

র‌্যাব-৬ জানায়, রামপাল উপজেলার দলবদ্ধধর্ষণের শিকার নারী কর্মী রবিবার সন্ধ্যায় মোংলায় একটি গার্মেন্টসে কাজ শেষে বাড়ী ফিরছিল। এ সময় ভাগা হতে তার বন্ধু হৃদয়ের সাথে বাড়ি যাচ্ছিলেন। এসময়ে হেঁটে ভাগা এলাকার চেয়ারম্যানের মোড় পৌছালে পরিত্যক্ত মাদ্রাসা মাঠে দেয়ালের কাছে বন্ধু হৃদয়কে আটকে মারধর করে গার্মেন্টস কর্মীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ধর্ষকরা পালিয়ে যায়। বিষয়টি মোবাইল ফোনে ওই তরুনীর মাকে জানান হলে তিনি তৎক্ষনক ঘটনাটি র‌্যাবকে মোবাইল ফোনে অবহিত করেন।

এ ঘটনার পরপর র‌্যাবের একটি দল রবিবার রাতভর থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষনের মূলহোতা মো. আবুল কালাম আজাদ ওরফে শুকুরসহ (২৪) ৮ ধর্ষককে গ্রেফতার করে। সকালে ধর্ষকদের রামপাল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

তবে রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সামছুউদ্দিন বিকালে সাংবাদিকদের জানান, এঘটনায় এখনো মামলা হয়নি। দলবদ্ধ ধর্ষনের ঘটনা সন্দেহজনক মনে হওয়ায় গ্রেফতারকৃতদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।