বেতাগী পৌর শহরে বেওয়ারিশ কুকুর আতঙ্ক

প্রকাশিত: ৩:৪৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২১
নিজস্ব প্রতিবেদক:
উপকূলীয় জনপদ বরগুনার বেতাগী পৌর শহরের জনসাধারণ বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রুবে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রব আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে  রাতে সাধারণ পথযাত্রীদের আতঙ্ক ও বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, পৌর শহর এলাকায় বেওয়ারিশ কুকুরের উৎপাত বৃদ্ধি পেয়েছে। দিনে ও রাতে বাজারে আসা জনসাধারণের বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়।
পৌরসভা এলাকার একাধিক মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করে জানিয়েছে, গত ৭ বছর ধরে  কুকুর নিধন অভিযান নেই। এ কারণে বিভিন্ন ওয়ার্ডের সড়কসমূহে ও আবাসিক এলাকাগুলোতে বেওয়ারিশ কুকুরের সংখ্যা ব্যাপক হারে বেড়ে যায়।
পৌর শহরের বাসস্ট্যান্ডের চৌমাথা, বেতাগী-সুবিদখালী সড়ক, সেকারি কলেজ, সাব-রেজিস্ট্রার এলাকা, লঞ্চঘাট, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সড়ক, উপজেলা পরিষদ চত্ত্বর, খাসকাচারী মাঠ ও বাজারে সড়কগুলোতে এদের আনাগোনা বেশি দেখা যায়। এরা সাধারণত ৫ থেকে ১২টি, আবার কখনও ৭ থেকে ১৫টি দলবেঁধে থাকতে দেখা যায়। আবার কখনও অন্য এলাকায় এদের মধ্যে থেকে ২/৩টা কুকুর ছুটে যায় তখন তাদের ওপর আক্রমণ করতে দেখা গেছে। এ সময় অর্ধ শতাধিক এসব বেওয়ারিশ কুকুর জড়ো হয়ে দফায় দফায় আক্রমণে আতঙ্ক থাকে পথযাত্রীসহ সাধারণ মানুষ। রাতে যখন বিদ্যুৎ চলে যায়, তখন এদের আনাগোনা বেশি লক্ষ্য করা গেছে। এসময় পথযাত্রীদের আক্রমণ  ও কারো কারো কামড়ানোর অভিযোগ রয়েছে ।
এ বিষয় পৌর শহরের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা প্রবীন সাংবাদিক আকন্দ শফিকুল ইসলাম বলেন, বেওয়ারিশ কুকুরের অত্যাচারে সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ। পৌর কর্তৃপক্ষ এর একটা সমাধান করা উচিত।
পৌরসভার প্যানেল মেয়র এবিএম মাসুদুর রহমান বলেন, কয়েকবছর আগেও বেওয়ারিশ কুকুর নিধনে আলাদা বাজেট থাকতো। কিন্তু বর্তমানে বণ্যপ্রাণি সংরক্ষণ আইনে এসব বেওয়ারিশ কুকুর নিধন বন্ধ থাকায় এর সংখ্যা বেড়ে গেছে।
বেওয়ারিশ কুকুরের উৎপাত থেকে মুক্তির জন্য পৌর কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন মহল।
  • ডি,এন