ফরম পূরণ করতে না পেরে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

প্রকাশিত: ১:০৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯

নিউজ ডেস্কঃ পাবনার চাটমোহরে শনিবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ফরম পূরণ করতে না পেরে ছাইকোলা ডিগ্রি কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করেছে। পরে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষসহ প্রধান গেটে তালা লাগিয়ে দেয়।এসময় উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে অধ্যক্ষসহ অন্যান্য শিক্ষকরা কলেজ থেকে আত্মগোপনে চলে যান। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত কলেজ ক্যাম্পাসে অবস্থান করেছিল।কলেজর ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছাইকোলা ডিগ্রি কলেজে গত নভেম্বর মাসে উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষে ১৫১ জন শিক্ষার্থী নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশ নেয়। ফরম ফিলাপের জন্য ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে দেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। কয়েকদিন আগে ফরম ফিলাপ শুরুও হয়। উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষার জন্য শনিবার ছিল ফরম ফিলাপের শেষ দিন। কিন্তু নির্বাচনী পরীক্ষায় ৪৫ জন শিক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়। কিন্তু অকৃতকার্য শিক্ষার্থীর মধ্যে থেকে গোপনে কলেজ কর্তৃপক্ষ প্রায় ৫/৬ জন ফরম ফিলাপের সুযোগ দিলেও অন্যদের না দেওয়ার বিক্ষোভ শুরু করে।

৭ ঘণ্টা পর ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেটে ট্রেন চলাচল শুরু

পরে অকৃতকার্য শিক্ষার্থীরা তাদের শেষ বারের মতো সুযোগ দেওয়ার কথা বললে অধ্যক্ষ মো. সাইফুল ইসলাম অপারগতা প্রকাশ করেন। পরে অকৃতকার্য ওই শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করলে অধ্যক্ষসহ অন্যান্য শিক্ষকরা আত্মগোপনে চলে যান। এরপর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের কক্ষে এবং কলেজ ভবনে প্রবেশের গেটে তালা ঝুলিয়ে দেন এবং বিক্ষোভ মিছিল করে।রবিন হোসেন, আসাদুল ইসলাম, সাগর হোসেনসহ বেশ কয়েকজন অকৃতকার্য শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, শেষ বারের মতো অধ্যক্ষ স্যারের কাছে সুযোগ চেয়ে আবেদন করতে আসলে তিনি আমাদের সাথে খারাপ ব্যবহার করেন পরে অধ্যক্ষসহ অন্যান্য শিক্ষকরা কলেজ থেকে পালিয়ে যান বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের। কেন অকৃতকার্যদের মধ্যে থেকে গোপনে ফরম ফিলাপের সুযোগ দেয়া হলো এমন অভিযোগ তোলেন তারা।

https://dainiksomoysangbad24.com/news/1179

এ ব্যাপারে জানতে চেয়ে কলেজের অধ্যক্ষ মো. সাইফুল ইসলামের মোবাইলে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরকার মোহাম্মদ রায়হান বলেন, বিষয়টি শুনেছি। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।