| | শুক্রবার, ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৮ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী |

চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ না করার পক্ষে যেসব যুক্তি প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিতঃ ৫:৫৩ অপরাহ্ণ | জুলাই ০৮, ২০১৯

ষ্টাফ রিপোর্টার :সোমবার গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ না করার প্রশ্নে বিভিন্ন যুক্তি তুলে ধেরন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।তিনি বলেন, এখন নিয়মিত পড়াশোনা করলে ২৩-২৫ বছরের মধ্যেই সরকারি চাকরির পরীক্ষা দিতে পারে। এ ছাড়া তিনটি বিসিএসে দেখা গেছে, যারা বেশি বয়সী, তাদের পাসের হার খুবই কম।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ডিএনসির অভিযানে মাদকসহ ৪ ব্যাক্তি আটক

সোমবার গণভবনে চীন সফরের পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন জন্ম নিবন্ধন হয়। নিয়মিত পড়াশোনা করলে ১৬ বছরে এসএসসি পাস করে। এরপর ২ বছরে এইচএসসি। এরপর ৪ বছরে অনার্স ও ১ বছরে মাস্টার্স করলে ২৩ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে সরকারি চাকরির পরীক্ষা দিতে পারে।

তিনটি বিসিএসের প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৩৫তম বিসিএসে ২৩ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে ৪০.৭ শতাংশ, ২৫ থেকে ২৭ বছরের মধ্যে ৩০.২৯ শতাংশ এবং ২৭ থেকে ২৯ বছরের মধ্যে ১৩.১৭ শতাংশ প্রার্থী পাস করেছেন। এ ছাড়া ২৯ বছরের বেশি বয়সের প্রার্থীদের পাসের হার ৩.৪৫ শতাংশ।

তিনি বলেন, ৩৬তম বিসিএসে ২৩ থেকে ২৫ বছরের প্রার্থীদের ৩৭.৪৫ শতাংশ, ২৫ থেকে ২৭ বছরের প্রার্থীদের মধ্যে ৩৪.৭৮ শতাংশ, ২৭ থেকে ২৯ বয়সের ১৯.৮৯ শতাংশ প্রার্থী পাস করেছেন। এ ছাড়া ২৯ বছরের বেশি বয়সী প্রার্থীদের পাসের হার ৩.২৩ শতাংশ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৩৭তম বিসিএসে ২৩ থেকে ২৫ বছরের ৪৩.৬৫ শতাংশ, ২৫ থেকে ২৭ বছরের মধ্যে ২৩.৩৫ শতাংশ, ২৭ থেকে ২৯ বয়সের ৭.২০ শতাংশ প্রার্থী পাস করেছেন। এই পরীক্ষায় ২৯ বছরের বেশি বয়সী প্রার্থীদের পাসের হার ০.৬১ শতাংশ।

প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন করে বলেন, ‘এখন আপনারাই বলেন, চাকরির বয়স বাড়ালে কী হবে?’

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares