| | শুক্রবার, ৮ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী |

১০ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা; ডিবি পুলিশ পরিচয়ে গাড়ি চালককে হত্যা

প্রকাশিতঃ ১:০৩ পূর্বাহ্ণ | এপ্রিল ২৫, ২০১৯

পটিয়া (চট্টগ্রাম) থেকে সেলিম চৌধুরী: চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহা সড়কের কর্ণফুলী উপজেলার শুরু ভেল্লাপাড়া ব্রীজ এলাকায় ডিবি পুলিশ পরিচয়ে সোমবার রাতে এক গাড়ি চালককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ওঠেছে। গাড়ি চালকের নাম জালাল উদ্দিন (৫০)। তিনি দিনাজপুর জেলার কোতোয়ালী থানার দরবারপুর গ্রামের মো. আফজল হোসেনের পুত্র।

মঙ্গলবার রাতে গাড়ি চালকের ছ্টো ভাই জুয়েল হোসেন বাদী হয়ে কর্ণফুলী থানায় অজ্ঞাতনামা ১০ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা দায়ের করেছে। ঘটনার ২৪ ঘন্টা পেরুলেও পুলিশ ক্লু বের করতে পারেনি। এদিকে, শ্যামলী পরিবহনের গাড়ি চালককে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে হত্যা করার ২৪ ঘন্টার পরও প্রশাসন কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় যাত্রীবাহী পরিবহন শ্রমিক সমিতির পক্ষ থেকে ২৪ ঘন্টার ধর্মঘট শুরু হয়েছে। এই ধর্মঘট বুধবার সন্ধ্যা ৬ টাকা থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চলবে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শ্যামলী পরিবহনের কক্সবাজার ছেড়ে আসা ঢাকামূখী একটি চেয়ারকোচ পটিয়া সীমান্তের কর্ণফুলী উপজেলা এলাকায় পৌছলে ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে ৪জন যাত্রী গাড়িতে উঠেন। তারা পটিয়া সীমান্তের কর্ণফুলী উপজেলার শুরুতে ভেল্লাপাড়া ব্রীজের পরে রাস্তায় জ্যাম লাগিয়ে চালক জালাল উদ্দিনকে বেদমভাবে মারধর করে। পরে গাড়ি চালককে হাসপাতালে ভর্তি করলে সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

নুসরাত অন্যায়ের প্রতিবাদ করায় তাকে হত্যা করা হয়েছে

চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের (বন্দর জোন) উপ-পুলিশ কমিশনার মোস্তাইন হোসেন, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (বন্দর জোন) ডিসি হামিদুল আলম, এডিসি হুমায়ুন কবির, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (কর্ণফুলী জোন) জাহেদ হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) আফরুজুল হক টুটুল, নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমান, রফিকুল ইসলাম, পটিয়া থানার ওসি বোরহান উদ্দিন, কর্ণফুলী থানার ওসি আলমগীর মাহমুদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও কোন ক্লু তারা বের করতে পারেনি। প্রত্যক্ষদর্শী ভেল্লাপাড়া ব্রিজ সংলগ্ন বকুলের বালি মহালের নিরাপত্তা প্রহরী মোহাম্মদ ছবুর জানান, তিনি রাতে ৩টি গাড়ি নিয়ে পুলিশের মত লোকজন বাস থামিয়ে তল্লাশি করতে এবং চালককে নিচে নামিয়ে আনতে দেখেন।

শ্যামলী পরিবহনের সুপারভাইজার আজিম উদ্দিন, জানিয়েছেন, যেখানে ঘটনা ঘটেছে তার অদূরে র‌্যাব-৭ এর একটি গাড়ি দেখেছেন। ইয়াবা উদ্ধারের নামে তাদের গাড়ি চালককে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করেছে। আরকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের অর্থ সম্পাদক মোহাম্মদ ইয়াছিন জানিয়েছেন, শ্যামলী পরিবহনের গাড়ি চালককে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় কর্ণফুলী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পটিয়া থানার ওসি বোরহান উদ্দিন জানিয়েছেন, ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে শ্যামলী পরিবহনের গাড়ি চালককে পটিয়া সীমান্তের কর্ণফুলী থানা এলাকায় হত্যা করা হয়েছে। পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার পর কর্ণফুলী থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু করা হয়েছে।

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares