| | মঙ্গলবার, ৩০শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ই সফর, ১৪৪১ হিজরী |

খুলনায় ওসি’র ছেলেসহ তিনজন গ্রেফতার: ২শ’পিচ ফেন্সিডিল জব্দ

প্রকাশিতঃ ১০:১৪ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯

আতিয়ার রহমান,খুলনা অফিস : খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলায় দুইশ’পিচ ইয়াবাসহ জেলা ডিবির সাবেক ওসি শিকদার আক্কাস আলীর ছেলে মামুন শিকদার (৩২) ও তার দু’জন সহযোগিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ডুমুরিয়া উপজেলার সরাবপুর রাস্তার ঝিলেরডাঙ্গায় জেলা ডিবি’র চেক পোষ্টে তল্লাশীকালে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার এঘটনায় ডুমুরিয়া থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে (নং-২৪)।

গ্রেফতার হওয়া বাকী দু’জন হলেন, খুলনা নগরীর আব্দুল কুদ্দুস শেখের ছেলে সুমন (২৮) ও মৃত জয়নাল আবেদীনের ছেলে বাবুল হোসেন (৩৫)। তাদের কাছ থেকে একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়। বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জেলা ডিবি’র বর্তমান ওসি তোফায়েল আহমেদ নিশ্চিত করেছেন। তাদেরকে বৃহস্পতিবার আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

জেলা ডিবি’র সুত্রে জানা গেছে, ডুমুরিয়া উপজেলার সরাবপুর রাস্তার ঝিলেরডাঙ্গায় জেলা ডিবি’র নিয়মিত চেক পোষ্টে তল্লাশী চলছিলো। এসময় একটি মোটরসাইকেলে তিন যুবককে দেখে থামার জন্য সিগন্যাল দেয় পুলিশ। পুলিশের সিগন্যাল দেখে পাশ কাটিয়ে দ্রুত চলে যেতে চাইলে চেকপোষ্টের ডিবি পুলিশ তাদেরকে মোটরসাইকেলসহ আটকে ফেলে। তাদের সাথে থাকা ব্যাগ তল্লাশী করে দু’শ পিচ ফেন্সিডিল পাওয়া যায়। এসময় তাদের পরিচয় নিতে গিয়ে দেখা যায় সদ্য বিদায়ী খুলনা জেলা ডিবি’র ওসি শিকদার আক্কাস আলীর ছেলে মামুন শিকদারসহ তার দু’জন সহযোগি এরা।

পরবর্তিতে খোজ খবর নিয়ে দেখা গেছে, শিকদার আক্কাস আলী খুলনা জেলা ডিবি’র ওসি থাকাকালীন সময়ে তার ছেলে মামুনের নেতৃত্বে খুলনায় মাদক পাচারের একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট গড়ে তোলে। পুলিশী বেষ্টণীর মধ্যে থেকেই অবাধে সে ফেন্সিডিল, ইয়াবাসহ মাদক দ্রব্য খুলনায় নিয়ে আসতো। এছাড়া খুলনা জেলা ব্যাপি মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেটের সাথেও চিলো তার সখ্যতা।

খুলনায় কর্মরত কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, বাবা জেলা ডিবি’র ওসি থাকাকালীন সময়ে মামুন শিকদার বেপরোয়া হয়ে ওঠে। মাদকসহ নানা অপরাধের সাথে সে জড়িয়ে পড়ে। এরআগেও কয়েকবার সে এ ধরনের কাজে গিয়ে পুলিশের মুখোমুখি হয়েও তারা বাবা তৎকালীন খুলনা জেলা ডিবি’র ওসি শিকদার আক্কাস আলীর কারনে রক্ষা পেয়েছে। বর্তমানে শিকদার আক্কাস আলী কুষ্টিয়ার জেলা ডিবিতে কর্মরত রয়েছে।

এবিষয়ে ওসি আক্কাস আলী মুঠোফোনে বলেন, আমি ঘটনার কথা শুনেছি। এখন আপনারা দেখেন কি করা যায়। এই বলে তিনি ফোন কেটে দেন।

এদিকে খুলনা জেলা ডিবি’র ওসি থাকাকালীন সময়ে শিকদার আক্কাস আলীর নানা অনিয়ম ও ক্ষমতার অপব্যবহারের চিত্র বেড়িয়ে আসতে শুরু করেছে। এছাড়া তিনি খুলনার নবনির্মিত জেলখানার পেছনে একটি মৎস্য ঘের দখল নিতে গিয়ে সেই ঘেরের দু’জন ব্যবসায়ীকে ইয়াবার মামলায় ফাঁসিয়েছেন। তাছাড়া জেলা ডিবি’র ওসি থাকা অবস্থায় তিনি গ্রেফতার ও ঘুষ বাণিজ্যে কোটি কোটি টাকা হাতিয়েছেন।

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares