| | রবিবার, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৩শে মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী |

ফুলপুরে ঝুঁকি নিয়ে নদী পরাপার,বাঁশের সাঁকোই ৫ গ্রামবাসীর ভরসা

প্রকাশিতঃ ১০:৩৯ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২৫, ২০১৯

ফুলপুর(ময়মনসিংহ) থেকে সেলিম রানা : ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার গুপ্তেরগাঁও(কালিবাড়ীঘাট) গ্রামে ঝুঁিক নিয়ে বাঁশের সাঁকো দিয়ে উঠে নদী পরাপারের ভোগান্তি পোহাচ্ছেন জনসাধারণ। জানা যায়, উপজেলা পয়ারী ইউনিয়নের গুপ্তেরগাঁও কালিবাড়ীঘাটে সংলগ্ন ব্রক্ষপুত্রে খড়িয়া নদীর উপর স্থানীয়দের উদ্যোগে নির্মিত হয়েছে প্রায় ১৬০ফুট দৈর্ঘ্য বাঁেশর সাঁকো সেতু। প্রায় ৫ বছর ধরে বাঁশের সাঁকো পাড়ি দিয়েই চলেন ৫ গ্রামের মানুষ , ৫গ্রামের প্রায় ১৫ থেকে ২০ হাজার মানুষ।

এলাকাবাসী স্থানীয় উদ্যোগে প্রায় ৫ বছর আগে নদীর উপর ১৬০ ফুট দৈর্ঘ্য লম্বা একটি বাঁশের সেতু নির্মাণ করেন। তখন থেকে নদীর পাড়ি দিয়ে ৫ গ্রামবাসীর একমাত্র ভরসা ওই সেতু।গুপ্তেরগাঁও কালিবাড়িঘাটে সেতু না থাকায় উপজেলার পয়ারী ইউনিয়নের উপজেলা সদরে যাতায়াতের জনগনের এ দুর্ভোগচরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।সরকাররি প্রাথমিক বিদ্যালয় ,মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলেজসহ কয়েক হাজার ছাত্রছাত্রী বর্ষাকালে নড়বড়ে বাঁেশর সাঁকোই দিয়ে ঝুঁকিপৃর্ণ অবস্থায় যাতায়াত করে থাকে।প্রতিদিন পারাপারা হচ্ছেন প্রায় দেড় হাজার মানুষ।

গুপ্তেরগাঁও গ্রামের মোঃ আলাউদ্দিন ফকির বলেন এখানে একটি ব্রিজ নির্মাণ না হওয়ায় এলাকার লোকজন ফুলপুর উপজেলা সদরে সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারছেন না।এজন্য তাদের উৎপাদিত বিভিন্ন প্রকার কৃষিপণ্য শহরে বাজারেজাত করতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।কৃষকরা তাদের ন্যায্য দাম থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।একই কথা বলেন গুপ্তেগাঁও গ্রামের মো ঃ আনারুল হক , আব্দুল্লাহ ,আব্দুল খালেক শুকনো মৌসুমে নদীতে পানি কম থাকায় ছেলে মেয়েরা ঝুঁকি নিয়ে কাঠের সেতু দিয়ে বিদ্যালয়ে আসতে পারলেও বর্ষা মৌসুমে বেশি ঝুকি নিয়ে পারাপারা হতে হয়।

এলাকাবাসী দাবি নদীর উপর ব্রীজ নির্মান করা হলে লোকজনের উৎপাদিত পণ্য উপজেলা সদরে নিয়ে যাওয়া এবং উপজেলা সদরে থেকে কোনো পণ্য নিয়ে আসা সহজ হত। এবিষয়ে ৬নং পয়ারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো ঃ মফিদুল ইসলাম বলেন,বৃহৎ অঞ্চলের জন্য মানুষের যাতায়াতের জন্য ব্রীজটি অত্যন্ত গুরুত্বপৃর্ণ।

খুলনায় উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণের নিবন্ধন শুরু

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares