| | সোমবার, ১১ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী |

আগৈলঝাড়ায় মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

প্রকাশিতঃ ৪:০১ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১০, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : ইসলামী মূল্যবোধের উন্নয়ন ও সংস্কৃতি বিকাশ চর্চায় সরকারী অর্থায়নে ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মানের অংশ হিসেবে আগৈলঝাড়ায় ১২ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যায়ে তিন তলা বিশিষ্ট উপজেলা মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে।

শনিবার সকালে আগৈলঝাড়া-গৌরনদী-ঢাকা আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে ফুল্লশ্রীএলাকায় ৪৩ শতক জায়গার উপর মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত ও কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ মো. লিটন।

এসময় অন্যাদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও ইসলামী ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তাবৃন্দ।

উদ্বোধন শেষে স্থানীয় ফুল্লশ্রী জামে মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মনির মোল্লা দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ইসলামী মূল্যবোধের উন্নয়ন ও সংস্কৃতি বিকাশের উদ্দেশ্যে সৌদি সরকারের সহযোগিতায় দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে মোট ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণ করার কথা ছিল। এলক্ষে ২০১৬ সালের ৩ থেকে ৭ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি আরব সফরকালে প্রধানমন্ত্রী সৌদি বাদশাহর সঙ্গে আলোচনায় দেশব্যাপী মডেল মসজিদ নির্মাণের বিষয়টি তুলে ধরে সহযোগিতার পস্তাব করেন। সৌদি আরব তাতে সম্মতি দিলে দেশে ফিরে প্রধানমন্ত্রী এ মডেল মসজিদের নকশা তৈরিসহ সামগ্রিক বিষয়ে প্রস্তুতির নির্দেশ দেন। ৯ হাজার ৬২ কোটি ৪১ লাখ টাকার এ প্রকল্পে সৌদি সরকার দেয়ার কথা ছিল ৮ হাজার ১৬৯ কোটি ৭৯ লাখ ৩৫ হাজার টাকা। বাকি ৮৯২ কোটি ৬১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা দেয়ার কথা ছিল সরকারের।

তবে শেষ পর্যন্ত আর্থিক সহায়তার হাত গুটিয়ে নেয় সৌদি সরকার। পরে সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন এ সংক্রান্ত প্রকল্প গত বছরের ২৫ এপ্রিল একনেক সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একনেক সভায় সারাদেশে ৫৬০টি মডেল মসজিন নির্মানের অনুমোদন দেন।

প্রকল্প সূত্র মতে, মসজিদগুলো ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র হিসেবে স্বস্ব এলাকায় কাজ করার পাশাপাশি মসজিদগুলোতে নারী-পুরুষের আলাদা অজু করা ও নামাজ পড়ার ব্যবস্থা থাকবে। প্রতিটি মসজিদ হবে একই মডেলের। ৫ বা ৬ তলা এ মডেল মসজিদের জন্য জায়গা লাগবে প্রায় ৪০ শতক। প্রতিটি মসজিদ তৈরিতে প্রাথমিকভাবে সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে সাড়ে ১৪ কোটি টাকা। চারটি সিটি কর্পোরেশন ও ৬৪টি জেলা শহরের ৬৮টি মডেল মসজিদে লিফট-শীতাতপ ব্যবস্থা থাকলেও উপজেলা ও উপকূলীয় এলাকাসহ বাকি ৪৯২টি মসজিতে এই সুবিধা থাকছে না। এসব মসজিদে প্রতিদিন চার লাখ ৪০ হাজার ৪৪০ জন পুরুষ ও ৩১ হাজার ৪০০ জন নারীর নামাজের ব্যবস্থা থাকবে।

সূত্র মতে, মডেল মসজিদের জন্য জেলা পর্যায়ে ৪তলা এবং উপজেলা পর্যায়ে ৩ তলা বিশিষ্ট ভবন নির্মিত হবে।

আগৈলঝাড়া উপজেলায় ১২ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যায়ে ৪ তলা ফাউন্ডেশনের ৩ তলা সম্পন্ন মডেল মসজিদ নির্মানের জন্য ইতোমধ্যেই দরপত্র আহ্বান করেছে পিডব্লিউডি বিভাগ। টেন্ডারে মেসার্স কোহিনুর এন্টার প্রাইজকে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়েছে। গাড়ি পার্কিং সুবিধাসহ অত্যাধুনিক মডেল মসজিদ নির্মান কাজ বাস্তবায়ন করছেন মসজিদের জন্য দেড় কোটি টাকা মূল্যের ৪৩ শতক জমি দানকারী উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও ঠিকাদার শফিকুল ইসলাম সকুল সেরনিয়াবাত।

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে মিলিয়নিয়ার হলেন মাছ চাষি

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares