| | শনিবার, ৩০শে ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ই মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী |

দর্শকের অভাবে বন্ধ চিতলমারীর বুলবুল সিনেমা হল

প্রকাশিতঃ ৮:০০ অপরাহ্ণ | জুন ০৯, ২০১৯

বিভাষ দাস, চিতলমারী(বাগেরহাট) প্রতিনিধি : দর্শকের অভাবে বন্ধ হয়ে গিয়েছে চিতলমারীর এক সময়ের প্রধান বিনোদন কেন্দ্র বুলবুল সিনেমা হল। চলচ্চিত্রে রুচিশীল কাহিনী আর সিনেমা হলের কাঙ্খিত পরিবেশের অভাবেই দর্শক প্রিয়তা হারিয়েছে এমনই ধারণা সাধারণ মানুষের।

এক সময় পরিবারের লোকজন সবাই মিলে বুলবুল সিনেমা (সাবেক মা-মনি) হলে সিনেমা দেখতে যেতো। কিন্তু এখন আর তা হয়না। এক সময় হলে ছিল দর্শকের উপচে পড়া ভিড়। কিন্তু বর্তমানে যে ছবিগুলো তৈরি করা হচ্ছে তার অধিকাংশগুলোতে একই অভিনেতা আর দূর্বল কাহিনী। এরফলে দর্শক হারিয়েছে নম্বই দশকে প্রতিষ্ঠিত চিতলমারীর বিনোদন প্রতিষ্ঠান ঐতিহ্যবাহী বুলবুল সিনেমা হল। এনড্রয়েড ফোন, ইন্টারনেট ও স্যাটেলাইট চ্যানেলগুলোর দৌরত্বে এই জনপ্রিয় সিনেমা হলটি ২০১৮ সালের অক্টোবরে বন্ধ হয়ে যায়।
এক সময় বুলবুল সিনেমা হলটি ছিল খুবই জমজমাট।

নতুন ছবি মুক্তি পেলেই হলের কাউন্টারে হুলস্থূল পড়ে যেতো। তখন সব বয়সী মানুষের আগ্রহ ছিল সিনেমার প্রতি। কিন্তু ধীরে ধীরে সে দৃশ্যগুলো হারিয়ে যাচ্ছিল। দর্শকের অভাবে এবং লোকসানে পড়ে মালিক ইঞ্জি: রফিকুল ইসলাম তাপস হলটি বন্ধ করে দিতে বাধ্য হন।

রাষ্ট্রপতির পক্ষ হতে সাংবাদিক অরুণের স্ত্রীকে চিকিৎসা সহায়তা প্রদান

বুলবুল সিনেমা হলের ম্যানেজার মোঃ জামাল হোসেন বলেন, দীর্ঘদিন ১৮ বছর ধরে আমি এখানে ম্যানেজার হিসেবে আছি। বর্তমানে হলটি বন্ধ হওয়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে খুবই কষ্টের ভিতর দিয়ে জীবন যাপন করছি। অন্য কোন কাজের অভিজ্ঞতা না থাকায় ভালো কোন কাজ পাচ্ছি না। ছেলে মেয়েদের লেখা পড়া খরচ জোগানে ভীষন অসুবিধায় রয়েছি।

এক সময়ের সিনেমা পাগল এবং বর্তমান মেম্বার পরিমল হীরা জানান, সময় পেলেই পালিয়ে গিয়ে সিনেমা দেখতাম। এখন আমার বাসায় টিভি-ডিসের ব্যবস্থা রয়েছে। আমার হাতে রয়েছে দামী মোবাইল। তাতে ইচ্ছামত সিনেমাসহ নানা দেশি বিদেশি অনুষ্ঠান মিমেষেই দেখতে পারি। তাই সিনেমা হলে যেতে হয় না।

হলের বর্তমান মালিক ইঞ্জি: রফিকুল ইসলাম তাপস বলেন,এক সময় মধ্যবিত্ত শ্রেণীর দর্শকের কলরবে মেতে থাকতো সিনেমা হলটি। এখন আর সেদিন নেই। মুক্ত আকাশ-সংস্কৃতির এ যুগে ঘরে বসে দেখা যায় নানা ধরনের ছবি। সিনেমা হলে এমন এক সময় ছিল টিকেট দেওয়া যেত না। একটি ছবি এক মাসও চালানো হত। মানুষের হাতে হাতে এখন এনড্রয়েড ফোন ও ইউটিউবের মাধ্যমে সব ছবি দেখা সম্ভব। তাই দর্শন আর হলে সিনেমা দেখতে আসে না।

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares