| | শুক্রবার, ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী |

হালুয়াঘাটে ড্রেনেজ ব্যবস্থার অভাবে জলাবদ্ধতায় দূর্ভোগে এলাকাবাসী

প্রকাশিতঃ ১০:১৪ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ১৪, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : হালুয়াঘাট উপজেলার ধারা বাজারের একমাত্র বাইপাস সড়কটিতে একটু বৃষ্টিতেই হাটু পানি জমে যায়। খান বাড়ি ও আলতাফ হোসেনের বাড়ির সামনে অংশটিতে পানি জমে বর্তমানে রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

প্রত্যহ যাতায়াতকারী যদু মিয়া বলেন, ভাই আইন্নেরা (আপনারা) সাংবাদিক। বিভিন্ন জাগাত (জায়গায়) যাইন। মানুষের কষ্টগুলো তুইল্লা (তুলে) ধরেন। আমরার এই রাস্তাডা লইয়া একটু লেহুইন (লেখেন) ভাই। তাইলে স্যারেরা আমরার রাস্তাডা ঠিক কইরা দিবো। পোলাপাইন ইস্কুলে যাইতে পারে না। আমরার খুবই কষ্ট। ক্যামেরা দেখে এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন তিনি।

জানা যায়, কিছুদিন আগে ইউনিয়ন পরিষদ তহবিল হতে প্রায় ২শ ফুট রাস্তা সংস্কার করা হলেও বর্তমানে ওই স্থান দিয়ে পথচারীসহ যানবাহন চলাচল করা কঠিন হয়ে পড়েছে। এ রাস্তা দিয়ে পাশ্ববর্তী তিন ইউনিয়নের প্রায় ২০ হাজার মানুষ চলাচল করে। তাছাড়া প্রতি হাটের দিন সোম ও শুক্রবার ধান মহলে যানজটের কারনে ছোট গাড়িগুলোর চলাচলের একমাত্র ভরসা এই রাস্তাটি। ফলে অন্যান্য রাস্তার চেয়ে এটি সর্বাপেক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ। পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় বৃষ্টি এলেই রাস্তাটি পানিতে ভরে যায়। ফলে পথচারীদের চলাচলে দূর্ভোগ পোহাতে হয়।

রাস্তা সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা জাহিদুল ইসলাম দর্পণ বলেন, পানি যাওয়ার জন্য কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় বর্তমানে চলাচলে খুবই অসুবিধা। কলেজ শিক্ষার্থী রিয়াজ জানায়, বিকল্প রাস্তা না থাকায় গত কয়েকদিন ধরে দূষিত পানিতে পায়ে হেটে কলেজে আসা-যাওয়া করতে হচ্ছে। বর্ষা মৌসুমের আগেই রাস্তাটির ড্রেনেজ ব্যবস্থা করার জোর দাবি জানায় সে।

অপরদিকে মাঝিয়াইল মাদরাসা রোডের ধারা বাজার প্রবেশ মুখে আকরাম রাইস মিলের সামনের রাস্তাটিতেও পানি জমে থাকে। কিছুদিন আগে এই রাস্তার কার্পিটিং করা হলেও পানি জমে থাকার ফলে তা নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে বাজারে প্রবেশ মুখে পথচারীদের নানা সমস্যায় পড়তে হয়। এই রাস্তাটি দিয়ে পাশ্ববর্তী কৈচাপুর ইউনিয়ন, ধারা ইউনিয়নের কুতুড়া, বাড়ইগাঁও, মাঝিয়াইল, দড়িনগুয়া ও মকিমপুর নগুয়া গ্রামের হাজারো মানুষ চলাচল করে।

এ বিষয়ে স্থানীয় ধারা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমদ বিপ্লব বলেন, রাস্তাগুলোতে অতিশীঘ্রই ড্রেনেজ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, রাস্তাটি সরেজমিনে পরিদর্শন করেছি। জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তা দুটিতে আমরা অচিরেই ড্রেনেজ ব্যবস্থা ও সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares