| |

জীবন্ত মানুষ পুড়িয়ে মারার পথ দেখিয়েছে বিএনপি-জামায়াত : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ 5:13 pm | April 13, 2019

নিউজ ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আগুন দিয়ে মানুষ হত্যা করা ঘৃণিত অপরাধ। জীবন্ত মানুষ পুড়িয়ে মারার পথ দেখিয়েছে বিএনপি-জামায়াত। বাস, ট্রাক,লঞ্চ এমন কি প্রাইভেটকার থেকে চালককে নামিয়ে তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে হত্যা করা শিখিয়েছে তারা।

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বিকালে গণভবনে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি-জামায়াতের সরকারবিরোধী আন্দোলনে নাশকতার সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জীবন্ত মানুষের গায়ে আগুন দেয়ার পথটা বিএনপি দেখিয়ে গেছে। বাস, ট্রাক,লঞ্চ এমন কি প্রাইভেটকার থেকে চালককে নামিয়ে তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে হত্যা করা শিখিয়েছে বিএনপি-জামায়ত। ২০১৫ সালে আওয়ামী লীগ সরকার উৎখাত করতে অগ্নিসন্ত্রাস শুরু করে বিএনপি-জামায়াত।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পেট্রলবোমা ছুড়ে জীবন্ত মানুষকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মেরেছে তারা। যারা এর শিকার হয়েছেন তারাই একমাত্র বুঝতে পারেন এর কত যন্ত্রণা। অনেকে পোড়া শরীর নিয়ে এখনো বেঁচে আছেন। তাদের অনেককেই আমরা সাহায্য সহযোগিতা করছি।’

ব্রুনাইয়ের সঙ্গে বাংলাদেশের ৬ এমওইউ সই

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত কেউ ছাড় পাবে না। তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

পাঁচ দিন পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মারা যান নুসরাত। বৃহস্পতিবার গ্রামের বাড়িতে তার দাফন সম্পন্ন হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নুসরাতকে যেভাবে পুড়িয়ে মারা হয়েছে এর নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের নেই। আমরা চেষ্টা করেছিলাম মেয়েটিকে বাঁচানোর। সিঙ্গাপুরে পাঠাতে চেয়েছিলাম। সেখানকার চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে, তাদের সঙ্গে পরামর্শ করে এখানে চিকিৎসা চলেছে। সিঙ্গাপুরে নিয়ে যাওয়ার মতো অবস্থায় ছিল না। কিন্তু দুর্ভাগ্য, মেয়েটিকে আর বাঁচানো গেল না।’ ‘বিনা কারণে মেয়েটিকে হত্যা করা হলো। এর সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড়ব না। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি তাদের পেতেই হবে।’

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর কর্মসূচি নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি ঐতিহাসিক মুজিব নগর দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি নিতে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর বৈঠক। এতে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সূচনা বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী আসন্ন বাংলা নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রত্যাশা জানান, নতুন বছরে যেন উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকে। নুসরাতকে আগুনে পুড়িয়ে মারার সাথে জড়িত কাউকে ছাড় না দেয়ার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী।

বৈঠকে ভবনে আগুন লাগা প্রতিরোধে ভবন মালিকদেরকে প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তোলাসহ জনসচেতনতা বাড়াতে জোর দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনে কাউকে সরকারের অনুমতি নিতে হবে না বলেও জানান বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares