| | বৃহস্পতিবার, ৩রা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী |

গৌরীপুরে রাতের আঁধারে পুড়িয়ে দেয়া হচ্ছে হত্যা মামলার আসামীদের বাড়ি-ঘর

প্রকাশিতঃ ১২:১০ পূর্বাহ্ণ | মার্চ ২৫, ২০১৯

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের গৌরীপুরে সহনাটি ইউপির টেঙ্গাপাড়া গ্রামে রাতের আঁধারে ইদ্রিস আলী হত্যা মামলার আসামী স্থানীয় আব্দুল কাদির গংদের বাড়ি-ঘরে ফের লুটপাট-ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে দুর্বৃত্তরা। আড়াই মাসে এ মামলার সকল আসামীর ১৬ টি ঘরে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়। এক্ষেত্রে আসামী পক্ষের লোকজনের অভিযোগ বাদী পক্ষের লোকজন অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনার সাথে জড়িত। অপরদিকে বাদী পক্ষের লোকজনের অভিযোগ আসামী পক্ষের লোকজন নিজেরাই রাঁতের আঁধারে এসব কর্মকান্ড করে এর দায় তাদের ওপর চাপানোর চেষ্টা করছেন।

নিহত ইদ্রিস আলীর ছোট ভাই শফিকুল ইসলাম ফারুক জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মৃত আলী হোসেনের ছেলে প্রতিবেশী আব্দুল কাদির গংরা ৩ জানুয়ারী ভোরে ধারালো অস্ত্র নিয়ে পরিকল্পিতভাবে অতর্কিতে তাদের বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় হামলায় তার ভাই হাদিস মিয়া, ইদ্রিস আলী, আজিজুল হাকিম, ভাতিজা কবির আহমেদ কাজল মারাত্মক রক্তাক্ত জখম হন। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসহাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৭ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে ১০ জানুয়ারি দিবাগত রাতে তার ভাই ইদ্রিস আলী মারা যান। উক্ত হত্যা ও হামলার ঘটনার সাথে জড়িত ১৮ জনের বিরুদ্ধে তিনি বাদী হয়ে গৌরীপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

শফিকুল ইসলাম ফারুক আরো জানান, মামলার আসামি পক্ষের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনার সঙ্গে তারা জড়িত নন। আসামী পক্ষের লোকজন তাদেরকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসাতে পরিকল্পিতভাবে রাতের আঁধারে নিজেদের বাড়িতে একের পর এক অগ্নিসংযোগ ও লুপাটের ঘটনা ঘটাচ্ছে।

এদিকে মামলার মূল আসামী আব্দুল কাদিরের বড় ভাই আবু তাহের (৫৫) জানান, ঘটনার পর থেকে তাদের বাড়ি নারী-পুরুষ শূণ্য অবস্থায় রয়েছে। এ সুযোগে ১৩ জানুয়ারি দিবাগত রাতে বাদী পক্ষের লোকজন তার দুটি ঘরসহ ছোট ভাই আব্দুল কাদিরের দুটি ঘরে ভাংচুর-লুটপাট শেষে অগ্নিসংযোগ করেছে। এছাড়া অন্য আসামীদের বাড়ি-ঘরে লুটপাট করা হয়। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে আদালতে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, এরপর আড়াই মাসে মামলার আসামী সাইফুল ইসলাম (৪২), মোজাম্মেল (৩৫), কামরুল (৩৮), পলাশ (২৫), আবুল কাশেম (৫০), আবুল মনসুর (৫০), শান্ত মিয়া (৪২), আবুল হাসেমসহ (৫৫) অন্য আসামীর নারী-পুরুষ শূণ্য বাড়িতে রাতের আঁধারে আরো ১২টি ঘরে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর-লুটপাট করে ব্যাপক ক্ষতি করা হয়েছে।
স্থানীয় লোকজন জানান, গভীর রাতে নারী-পুরুষ শূণ্য আসামীদের বাড়িতে প্রায়ই আগুন জ্বলতে দেখে দৌঁড়ে গিয়ে তারা সে আগুন নেভান। এসময় ঘটনাস্থলে কাউকে দেখতে পান না তারা।

গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, ১ম দফায় আসামী পক্ষের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনায় মোজাম্মেল বাদী হয়ে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। পরবর্তীতে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর-লুটপাটের ঘটনায় এ পর্যন্ত থানায় কেউ অভিযোগ করেননি। তিনি বলেন, ইদ্রিস হত্যা মামলার তিন আসামী আল মামুন, সুমন ও রোজিনাকে এরমধ্যে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares