| | শুক্রবার, ২৮শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী |

‘চট্টগ্রামকে অবহেলিত রেখে উন্নয়নের স্বপ্ন দেখেন না প্রধানমন্ত্রী’

প্রকাশিতঃ ৮:৪৩ অপরাহ্ণ | মার্চ ০২, ২০১৯

স্টাফ রিপোর্টার : চট্টগ্রামকে অবহেলিত রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের উন্নয়নের স্বপ্ন দেখেন না বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। তিনি বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী সব সময় চট্টগ্রামবাসীর পাশে রয়েছেন।’

শনিবার (২ মার্চ) দুপুরে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে ‘চট্টগ্রাম মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন ও চলমান উন্নয়ন কর্মকাণ্ড’বিষয়ক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন তাজুল ইসলাম।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ‘চট্টগ্রাম দিয়েই বাংলাদেশের অর্থনীতি পরিচালিত হয়। চট্টগ্রাম বন্দরের কারণেই আমরা স্বপ্ন দেখছি। স্বপ্ন পূরণে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছি। তাই মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পরপরই এখানে এসেছি। সবার সঙ্গে মতবিনিময়ের আয়োজন করেছি। আমরা এখানে চট্টগ্রামের সমস্যা চিহ্নিত করব। সমস্যা সমাধানে মতবিনিময় করব। সমাধানের পথ খুঁজে নেব।’

‘চট্টগ্রামবাসীর পাশে প্রধানমন্ত্রী আছেন। এ কারণে চট্টগ্রামের প্রতিটি প্রকল্প তিনি পাস করিয়ে দেন। চট্টগ্রামের একটি উন্নয়ন প্রকল্পও তিনি বাদ দেননি। গত একনেক সভায়ও চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিয়ে হাজার কোটি টাকার একটি প্রকল্প তিনি অনুমোদন দিয়েছেন। সবাই সম্মিলিতভাবে কাজ করলে চট্টগ্রাম দ্রুত এগিয়ে যাবে। দেশেরও উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে,’ যোগ করেন তাজুল ইসলাম।

মন্ত্রী বলেন, ‘কর্ণফুলী নদীসহ আশপাশের ৫৭টি খালের দূষণ ও নাব্য ফিরিয়ে আনতে মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়নের কাজ শুরু হয়েছে। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ ছাড়া তুরাগ, বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষ্যা ও কর্ণফুলীসহ সব নদীর নাব্য ফিরিয়ে আনা ও দূষণ রোধে মাস্টারপ্ল্যান করা হচ্ছে। শিগগিরই মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়নে কমিটির সদস্যরা কাজ শুরু করবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘কর্ণফুলীর পাড়ে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু হয়েছে। একই সঙ্গে কর্ণফুলীর সঙ্গে যুক্ত ৫৭টি খালের নাব্য ফিরিয়ে আনারও কাজ চলছে।’

বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব এসএম গোলাম ফারুক, সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) নুরুল আলম নিজামী, জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন এবং সিটি কর্পোরেশন, সিডিএ, চট্টগ্রাম ওয়াসাসহ বিভিন্ন সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares