| |

চিতলমারীতে পাওনা টাকা না দেওয়ায় শ্বাস রোধের চেষ্টা

প্রকাশিতঃ 5:02 pm | December 05, 2018

বিভাষ দাস, চিতলমারী (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : বুধবার বেলা ১০ টার সময় চিতলমারীর পূর্ব খড়মখালী গ্রামের আবুলের মোড়ে কারেন্ট সুদের টাকা ওয়াদামাফিক দিতে না পারায় তাৎক্ষনিকভাবে টাকা আদায়ের জন্য চর কুড়ালতলা গ্রামের নিখিল মন্ডলের ছেলে রিপন মন্ডল উপজেলার পূর্ব খড়মখালী গ্রামের অনীল বিশ্বাসের ছেলে অসীম বিশ্বাস (৩২) এর গলায় গামছা দিয়ে শ্বাস রোধের চেষ্টা করে। সাথে কিল ঘুশি মারার এক পর্যায়ে ঘরের ওয়ালে মাথা ঠুকে মারাত্মক ভাবে আহত হয় অসীম বিশ্বাস। আহত অসীম কে চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বেডে শোয়া আহত অসমী বিশ্বাস কাতর কণ্ঠে জানায়,‘চর কুড়ালতলা গ্রামের রিপন মন্ডললের কাছ থেকে সে কারেন্ট সুদে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে ইতি পূর্বে ২৫ হাজার টাকা সুদ প্রদান করেছে। আজ টমেটো বেচা কেনার সময় রিপন সেখানে এসে সম্পূর্ণ টাকা দিতে বলে। বিকেলে দেয়ার জন্য সময় চাইলে সে তখনই সম্পূর্ণ টাকা দাবী করে। টাকা দিতে না পারায় সে আমার গলায় গামছা পেচিয়ে শ্বাস রোধ করতে চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে আমাকে কিল ঘুষি মারতে থাকে। আমার মাথা ওয়ালে ঠুকে দিলে আমার মাথা মারাত্বকভাবে ফেটে যায়। উপস্থিত লোকজন ধরে আমাকে হাসপাতালে নিয়ে আসছে। মাথায় ৯টা সেলাই লেগেছে।’

রিপন মন্ডল জানায়, ‘অসীম বিশ্বাস আমার দোকান থেকে বিভিন্ন সময়ে হাজার হাজার টাকার ভূষি, ডাল, সোয়াবিন, ফিডসহ নানা খাবার বাকী নিয়েছে। বার বার ওয়াদা করেও সে টাকা পরিশোধ না করায় আজ তার কাছে টাকা চাইতে গিয়েছিলাম। সেখানে মার পিটের কোন ঘটনা ঘটেনি।’

প্রত্যক্ষদর্শী ব্যবসায়ী (ফরিয়া) হুমায়ূন কবির বলেন, ‘অসীম বিশ্বাসকে মারাত্বকভাবে মারা হয়েছে। আর একটু হলে তার ভীষন ক্ষতি হয়ে যেতে পারতো।’

অসীম বিশ্বাসের এলাকার লোকজন জনায়, তার সর্বমোট দুই কাঠা বসত ভিটা ছাড়া আর কোন জমি জমা বা ঘের ভেড়ি নেই।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি। তবে অসীমের অভিভাবকরা জানান, তারা থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
চিতলমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অনুকুল সরকার জানান, এ ব্যপারো এখনো কোন অভিযোগ আসেনি। আসলে ব্যপারটা ক্ষতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares