| |

শিক্ষিত যুবকদের টার্গেট করেছিল জঙ্গিরা : র‌্যাব

প্রকাশিতঃ 9:40 pm | November 26, 2018

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর কলাবাগান, বসুন্ধরা ও মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে রবিবার রাতে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জেএমবির যে আট সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে, সংগঠনের জন্য শিক্ষিত, স্বচ্ছ ও পেশাজীবী সদস্য সংগ্রহ করা তাদের কাজ ছিল বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

গ্রেফতার আটজনের বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করা হলেও আগেই জানানো হয়েছিল এরা জেএমবির র‌্যাডিকেল ইয়ুথ গ্রুপের সদস্য।

সোমবার কারওয়ান বাজারের র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আমরা জানতে পারি এই গ্রুপে ৩০ থেকে ৩৫ জন সদস্য রয়েছে। সংগঠনটি চলে শুভাকাঙ্ক্ষী ও মধ্যপ্রাচ্য থেকে আসা অর্থে। গ্রুপের সদস্যরা, শিক্ষিত স্বচ্ছ ও পেশাজীবীদের দলের অন্তর্ভুক্ত করার চেষ্টা করতো। মূলত তাদের কার্যক্রমের জন্য অর্থের যোগানদানের জন্য তাদের সদস্যপদ দিতো।

যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তারা হলেন- আরাফাত আজম (৩০), রাশেদ আলম বাধন (২৮), আফজাল আলী (৩৭), মাহাদী হাসান (২৩), রাদিউজ্জামান হাওলাদার অনিক (২৭), জালাল উদ্দিন শোভন (২৮), জারির তাইসির (২৬), আসিফুর রহমান (২৮)।

মুফতি মাহমুদ বলেন, তামিম গ্রুপের সক্রিয় সদস্য বাশারুজ্জামান চকলেটের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল এই গ্রুপের অন্তত তিন সদস্যের; যারা ২০১৪-২০১৫ সালে জেএমবিতে যোগ দেয়। এরা সবাই উচ্চশিক্ষিত স্বনামধন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করতো। গত ৭-৮ মাস তাদের নজরদারিতে রাখার পর রবিবার গ্রেফতার করা হয়। সংগঠনটি আমিরের মাধ্যমে কার্যক্রম পরিচালনা করে। আটককৃত ৮ জনের মধ্যে সাবেক ৩ জন এবং বর্তমানে ২ জন আমির রয়েছে। এদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন আফজাল আলী।

এক প্রশ্নের জবাবে মুফতি মাহমুদ জানান, জেএমবির এই সদস্যরা বিভিন্ন পেশায় অভিজ্ঞতা সম্পন্ন। তারা বড় ধরনের নাশকতার পরিকল্পনা করতে পারে বলে আমাদের ধারণা ছিল।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!