| |

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘শাটল ট্রেন’ নিয়ে নির্মিত হচ্ছে পূর্নদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র

প্রকাশিতঃ 11:04 pm | November 17, 2018

পটিয়া (চট্টগ্রাম) থেকে সেলিম চৌধুরী : ১৯৮১ সাল থেকে পথচলা শুরু করে এখনো পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের নিত্যসঙ্গী হিসেবে চলমান এই শাটল ট্রেন। শাটল ট্রেন যেন একটি মঞ্চ। আর এই মঞ্চের শিল্পী হলেন চবি’র শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন আসা যাওয়ার সময় বগির দেয়ালে ‘ড্রাম’ চাপরিয়ে উচ্চস্বরে গান গেয়ে সারা বগি মাতিয়ে তুলেন। আর এই বগিতেই গান গাইতে গাইতে শিল্পী হয়ে উঠেছেন অনেকেই। তাঁদের মধ্যে আজ দেশের অন্যতম তারকা শিল্পী হলেন নকীব খান, পার্থ বড়ুয়া, এসআই টুটুলসহ আরো অনেকেই।

শুধু গান নয় এই ট্রেনকে ঘিরে গড়ে ওঠেছে হাজারো গল্পকথা অনেক রোমানঞ্চকর প্রেম কাহিনী। শাটল ট্রেন আর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় একসূত্রে গাঁথা। শাটল ট্রেনকে কেন্দ্র করেই রচিত হয় এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাসি-কান্না, প্রেম-ভালোবাসা ও আনন্দ-বেদনার মহাকাব্য।

এ মহাকাব্যের কিছু সময়, কিছু ঘটনা আর অনুভূতি নিয়ে নির্মিত হচ্ছে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘শাটল ট্রেন’।গতকাল (১৭ নভেম্বর) শনিবার বিকেল ৩টায় রাজধানীর লালমাটিয়ায় চারুপ্রাঙ্গণ আর্ট গ্যালারীতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০ তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী মো: কামরুল আহসান।

লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন ‘শাটল ট্রেন’ চলচ্চিত্রের প্রধান সহকারী পরিচালক নির্মাতা রিফাত মোস্তফা। উপস্থিত ছিলেন আহমেদুল করির নিপু, রফিকুল হাকিম, মেরিনা সুলতানা। চলচ্চিত্রটিতে থাকছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, প্রেম-ভালবাসা, বিচ্ছেদ ও শিক্ষাঙ্গনের নানা বৈচিত্রপূর্ণ কাহিনী। চলতি বছরের জানুয়ারি মাস থেকে এ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘শাটল ট্রেন’ ছবির নির্মাণ শুরু হয়েছে। চলতি বছরের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে এর নির্মাণ কাজ শেষ হতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।’ ২০১৯ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি মুক্তি দেবার পরিকল্পনা রয়েছে এ চলচ্চিত্রটি।

এ ছবিতে মোট ছয়টি মৌলিক গান রয়েছে। এছাড়াও ট্রেনের বগি ভিত্তিক গান রয়েছে। এতে অভিনয় করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৬তম ব্যাচের ছাত্রী মোহসেনা ঝর্ণার ‘বহে সমান্তরাল’ গল্প অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে এই চলচ্চিত্র। পরিচালনা করছেন ৩৪তম ব্যাচের চারুকলা বিভাগের সাবেক ছাত্র ও চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রদীপ ঘোষ এবং প্রধান সহকারী পরিচালক হিসেবে আছেন ৩৪তম ব্যাচের ফিন্যান্স বিভাগের রিফাত মোস্তফা।

এই চলচ্চিত্রটি একযোগে সারা দেশের প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শীত হবে। এছাড়া দেশের বিভিন্ন সিনেপ্লেক্সে প্রদর্শন করা হবে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ও প্রাক্তণ শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীগণ ক্যাম্পাসে ৭ দিনের প্রদর্শনী উপভোগ করার সুযোগ পাবে। দেশের স্বনামধন্য একটি টেলিভিশন চ্যানেলে চলচ্চিত্রটির টেলিভিশন প্রিমিয়ার করা হবে বলে প্রধান সহকারী পরিচালক রিফাত মোস্তফা। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের গণ-অর্থায়নে নির্মাণ হচ্ছে এই চলচ্চিত্র।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!