| |

চাঁপাইনবাবগঞ্জে কিশোর-কিশোরী সম্মেলন অনুষ্ঠিত

প্রকাশিতঃ 8:44 pm | October 30, 2018

ফয়সাল আজম অপু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে : চাঁপাইনবাবগঞ্জে বাল্যবিবাহের ব্যাপকতারোধে “কিশোর-কিশোরীদের ক্ষমতায়নে বিভাগীয় কর্মকর্তা, সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের দায়িত্ব ও কর্তব্য” বিষয়ক কিশোর-কিশোরী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ও জাতিসংঘ শিশু তহবিল (ইউনিসেফ) দেশের সকল শিশুর জীবনমান উন্নয়ন ও অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ৪ বছর মেয়াদি এরুপ একটি সমন্বিত উন্নয়ন কর্মসুচী গ্রহণ করেছে।

জেলা প্রশাসন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের আয়োজনে এবং ইউনিসেফের সার্বিক সহযোগিতায় ৩০ অক্টোবর সকাল ১০ টায় সদর উপজেলা পরিষদ হলরুমে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক এ জেড এম নুরুল হকের সভাপতিত্বে আয়োজিত সম্মেলনে প্রধাণ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোঃ নূর-উর রহমান, বিভাগীয় কমিশনার, রাজশাহী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, টিএম মোজাহিদুল ইসলাম, বিপিএম, পুলিশ সুপার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাজিবুল্লাহ হামিম, ফিল্ড অফিসার, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগ, ইউনিসেফ, চিত্রলেখা নাজনিন, উপ-পরিচালাক, স্থানীয় সরকার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, মোঃ মোখলেশুর রহমান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান, মোঃ নজরুল ইসলাম, মেয়র, নবাবগঞ্জ পৌরসভা, ইউনিসেফের স্থানীয় প্রতিনিধি জেসমিন হোসেন ও মঞ্জুরুল হোসেন। আয়োজিত কিশোর-কিশোরী সম্মেলনে জেলার বিভিন্ন উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও সদস্যবৃন্দ, জেলার সাংবাদিকবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, মহিলা নেতৃবৃন্দ ও বিপুল সংখ্যক কিশোর-কিশোরীরা উপস্থিত ছিলেন।

কিশোর-কিশোরী সম্মেলনের ধারণাপত্র তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন ইউনিসেফের রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ফিল্ড অফিসার নাজিবুল্লাহ হামিম। তিনি বলেন এ সম্মেলনের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। তা হচ্ছে (১) প্রকল্পের আওতাধীন সকল জেলা (মোট ২২টি) ও সিটি কর্পোরেশন (মোট ১১টি) এলাকায় সকল শিশুর বর্তমান অবস্থা ও পরিস্থিতি নিয়মিত বিশৃলেষন ওপরিবীক্ষণ (২) স্থানীয় জনগোষ্ঠীর অংশগ্রহণের মাধ্যমে শিশুর সার্বিক উন্নয়নের পথে বাঁধা-বিপত্তি ও দূর্যোগ-ঝুঁকি চিহ্নিত, বিশ্লেষন ও পরিবীক্ষনের মাধ্যমে স্থানীয় পর্যায়ে মাইক্রোপ্ল্যান প্রস্তুত করে সমাধানের পদক্ষেপ গ্রহণ (৩)শিশুদের দূর্যোগ-ঝুঁকিসমুহ চিহ্নিত করে ও সম্ভাব্য পরিণতি/ফল গুতুত্বসহ বিবেচনায় রেখে ঐসকল ঝুঁকি কমাতে একটি শিশু কেন্দ্রিক দূর্যোগ ঝুঁকিহ্রাসকরণ দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণ এবং (৪) সকল শিশুর সমস্যা ও দূর্যোগ-ঝুঁকিগুলো চিহ্নিত করে স্থানীয় পর্যায়ে উন্নয়ক বিষয়ক আলোচনার সময় স্থানীয় জনগনকে সম্পৃক্ত করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাজেট বরাদ্দসহ স্থানীয় কর্মশালায় অন্তর্ভুক্ত করা।

তিনি উপরোক্ত লক্ষ্যসমুহ বাস্তবায়ন লক্ষ্যে ইউনিসেফ বাংলাদেশের জেন্ডার কৌশলপত্র ২০১৭-২০২০ কিশোর কিশোরীদের জন্য (১) বাল্যবিবাহ বন্ধ করা (২)বয়ঃসন্ধিকালীন স্বাস্থ্য সেবায় অধিকতর অধিকার নিশ্চিত করা (৩) মাধ্যমিক শিক্ষা প্রাপ্তিতে অধিকতর সুযোগ তৈরী (৪) দূর্যোগকালীন কিশোরী/নারী সহিংসতা বন্ধ করা ইত্যাদি বিষয়গুলোতে অধিকতর প্রাধান্য দেয়া হবে বলে উল্লেখ করেন।

তিনি এ সম্মেলনের উদ্দেশ্য তুলে ধরে বলেন-(১) বাল্যবিবাহের নিয়ামকসমুহ সম্পর্কে সকলকে অবগত করা ও বাল্যবিবাহ বন্ধে ধ্বনি তোলা (২) কিশোর-কিশোরীদেরকে তাদের সমস্যা, মতামত, পরামর্শ উপস্থাপনের সুযোগ দেয়া (৩) বাল্যবিবাহ রোধে সমন্বয়ক হিসেবে জেলা প্রশাসনকে পাওয়া ও (৪) সকলের মধ্যে বাল্যবিবাহ সম্পর্কে ধারনাগত মত পার্থক্য দুর করা। সমাবেশে বেশ কয়েকজন কিশোর-কিশোরী তাদের সমস্যা, মতামত ও পরামর্শ তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!