| |

৩ বাংলাদেশী নারীকে ফেরত দিয়েছে ভারতীয় পুলিশ

বাংলাদেশের জনপ্রিয় ও সর্বশেষ খবর পেতে আ্যপসটি ইনস্টল করুন

প্রকাশিতঃ 1:15 am | September 25, 2018

ফয়সাল আজম অপু , বিশেষ প্রতিনিধিঃ সোমবার দুপুর আড়াইটার সময় সোনামসজিদ জিরো পয়েন্টে শিবগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে ৩ নারীকে হস্তান্তর করা হয়। পরে তাদের থানায় নিয়ে আসা হয়।

ফেরত আসা তিন নারী হল- যশোরের মনিরামপুর উপজেলার হরিংচি এলাকার নবীর আলীর মেয়ে পারভিন খাতুন (২২), একই জেলার শার্শা উপজেলার গোগা এলাকার সেরাজুল মড়লের মেয়ে রহিমা খাতুন (৩২) ও একই উপজেলার মৃত দাউদ আলীর মেয়ে রেহেনা খাতুন (৩০)।

এরমধ্যে রেহেনা খাতুন প্রায় ১৫ বছর পূর্বে ভারতে গিয়ে স্টিল কোম্পানীসহ বিভিন্ন কোম্পানীতে কাজ করতেন। এদিকে রহিমা খাতুন ২০১৫ সালের ১৫ নভেম্বর ভারতে গিয়ে এক মাস পর অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে পুলিশের হাতে আটক হয়।

অপরদিকে পারভিন খাতুন প্রায় সাড়ে চার বছর পূর্বে ভারতে গিয়ে বিভিন্ন বাসা বাড়িতে কাজ করতেন। পরে তিনি অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে পুলিশের হাতে আটক হয়।

ফেরত আসা ওই তিন নারী জানায়, ভারতের মুর্শিদাবাদ জেলায় তাদেরকে রাখা হয়েছিল। তবে সেখানে তাদের কোন নির্যাতন করা হয়নি বলে জানান। সেখান থেকে ভারতীয় ইমিগ্রেশন পুলিশের মাধ্যমে বাংলাদেশে পাঠানো হয়। অন্যদিকে ভারতে বন্দি জীবন থেকে মুক্ত হয়ে দেশে আসতে পেরে খুশি বলে জানান তারা।

এ বিষয়ে জানতে শিবগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) সেলিম রেজা জানিয়েছেন- সোনামসজিদ ইমিগ্রেশন দিয়ে ওই তিন নারীকে শিবগঞ্জ থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করে ভারতীয় পুলিশ।

এ সময় শিবগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) সেলিম রেজা, সোনামসজিদ ইমিগ্রেশন ইনচার্জ জাফর ইকবাল ও ভারতীয় ইংলিশ বাজার থানা পুলিশের ইসপেক্টরসহ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্যেক পরিবারকে খবর দেয়া হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে বাংলাদেশি ৩ নারীকে তাদের পরিবারের সদস্যদের নিকট হস্তান্তর করা হবে।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!