| |

ঐতিহ্যবাহী কপতাক্ষ নদের জোয়ারের পানিতে প্লাবিত ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা

বাংলাদেশের জনপ্রিয় ও সর্বশেষ খবর পেতে আ্যপসটি ইনস্টল করুন

প্রকাশিতঃ 10:29 pm | August 16, 2018

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা তালার ঐতিহ্যবাহী কপোতাক্ষ নদ খনন প্রকল্পের টিআরএম’র বাঁধ ভেঙে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করেছে। এতে গ্রামের রাস্তা ও ছোট-বড় কয়েকটি ঘেরসহ মাদরা ও মাদরা গুচ্ছগ্রামের প্রায় অর্ধশত বাড়ি তলিয়ে যায়। কপোতাক্ষ নদে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেলে লোকালয় প্লাবিত হয়ে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতির আশংকা দেখা দিয়েছে।

এদিকে ভাঙনকবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ। এসময় তিনি দ্রুত বাঁধ সংস্কারের জন্য সাতক্ষীরা জেলা প্রসাশন ও পানি উন্নয়ন বোর্ডকে নির্দেশ দেন। এছাড়া তিনি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর খোজ খবর নেন।দোহার গ্রামের অমল বাছাড় জানান, মঙ্গলবার রাতে টিআরএম’র বাঁধ ভেঙে যাওয়ার পর বুধবার সকালে সেই স্থান পানির আরো ভেঙ্গে যায়। এরফলে কপোতাক্ষ নদের পানিতে মাদরা গুচ্ছগ্রামের রাস্তা, মাধবখালী খাল ও উত্তর বিলের কয়েকটি মৎস্য ঘের প্লাবিত হয়েছে। এছাড়া মাদরা ও মাদরা গুচ্ছগ্রামের ৫০টির মতো বাড়ি প্লাবিত হয়েছে। রাস্তা ও বাড়ি তলিয়ে যাওয়ায় ইতোমধ্যে জনভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে। অতি দ্রুত বাঁধ সংস্কার করা না হলে জালালপুর ইউনিয়নের দোহার বিল, মাগুরা ইউনিয়নের মাদরা বিল ও খেশরা ইউনিয়নের কলাগাছি, রাজাপুর, বিশ্বাসের চক, হরিহরনগর ও শাহপুর বিলের শত শত মৎস্য ঘের এবং বসত বাড়ি প্লাবিত হয়ে ব্যপক ক্ষয়-ক্ষতি হবে।

মাগুরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গনেশ দেবনাথ জানান, মঙ্গলবার গভীর রাতে টিআরএম’র দোহার খাল সংলগ্নে বাঁধ ভেঙে যায়। এতে কপোতাক্ষ নদের পানি মাগুরাডাঙ্গা বিল ও মাদরা গুচ্ছগ্রামে প্রবেশ করে। পানিতে বিল তলিয়ে গেলেও মাদরা গুচ্ছগ্রামের মধ্যে এখনও (এ রিপোর্ট লেখাকালিন বুধবার রাত ৮টা) পানি প্রবেশ করেনি। তবে কপোতাক্ষ নদে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেলে গুচ্ছগ্রাম প্লাবিত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। এজন্য ইউপি চেয়ারম্যান গনেশ দেবনাথ অতিদ্রুত বাঁধটি মেরামতের দাবী জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে জালালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম. মফিদুল হক লিটু জানান অনতিবিলম্বে বাঁধ সংস্কার না হলে কপোতাক্ষ নদের জোয়ারের পানি খাল উপচে দোহার গ্রামের মধ্যে প্রবেশ করলে ব্যপক ক্ষয়-ক্ষতি হবে। তিনি আরও জানান গত দুই বছর আগে এই কপতাক্ষ নদিটি প্রায় আড়াই শত কোটি টাকারো বেশি ব্যয় করে খনন করা হয়েছে কিন্তু তদারকির অভাবে কাজটি ভালো হনি বলে জানাযায়।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!