| |

মীরসরাই শিল্পকলা একাডেমীর বর্ষা উৎসব অনুষ্ঠিত

প্রকাশিতঃ 9:40 pm | July 21, 2018

সানোয়ারুল ইসলাম রনি, মীরসরাই চট্টগ্রাম : ভেজা হাওয়ার পরশে মন হয়ে উঠছে আন্দোলিত। বর্ষা যেমন প্রকৃতিকে সজীব করে তোলে তেমনি জীবনকে করে তোলে উৎসবমুখর। নাচ, গান আর কবিতা পাঠের মধ্য দিয়ে মীরসরাই শিল্পকলা একাডেমীর শিল্পীগোষ্ঠী আয়োজিত ‘বর্ষা উৎসব-১৪২৫’ অনুষ্ঠান শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত মীরসরাই উপজেলা অডিটরিয়ামে অর্পা দাশ ও সানোয়ারুল ইসলাম রনি’র সঞ্চলনায় বর্ষা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানের মঞ্চে রবীন্দ্রনাথের ‘পাগলা হাওয়ার বাদল দিনে’ গানের সঙ্গে নাচ করে একাডেমীর শিল্পিরা। ‘মন মোর মেঘেরও সঙ্গী’ গান। আধুনিক গান ‘মেঘের গায়ে নূপুর বাজে। নজরুলের ‘এসো হে সজল শ্যামঘন দেয়া’-এর সঙ্গে নৃত্য। রবীন্দ্রনাথের ‘গহন ঘন ছাইল’ গানে শিল্পীরা নাচ পরিবেশন করেন। বর্ষা উৎসবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘পূব হাওয়াতে দেয় দোলা’ গানে শৈলী, নজরুলের ‘যাও মেঘদূত দিও প্রিয়ার হাতে’ বৈশাখী, ‘শাওন আসিল ফিরে’ অর্পা দাশ রবীন্দ্রনাথের ‘বহু যুগের ওপার হতে এলো আষাঢ়’ গানটি গেয়ে শোনান শ্রাবন্তী ।

এ উৎসবের উদ্দেশ্য ভালোবেসে প্রকৃতিকে সুরক্ষার আহ্বান। বর্ষা যেভাবে বৃক্ষকে বেড়ে উঠতে সাহায্য করে, জল প্রাণের উদ্ভব ঘটায়। সে জন্যই বর্ষার এত এত বন্দনা। মীরসরাই শিল্পকলা একাডেমীর শিক্ষক সাগর সেন বলেন ‘আমরা চাই মীরসরাইয়ে বেড়ে ওঠা প্রজন্ম প্রকৃতিবান্ধব হোক, প্রকৃতিকে চিনুক। রবীন্দ্রনাথ যেভাবে আমাদের প্রকৃতির সঙ্গে নিবিড়ভাবে পরিচয় করিয়ে দিয়ে গেছেন, সেভাবে খুব কম কবিই করেছেন। তাঁর সৃষ্টিকে সঙ্গী করে আমরা অসাম্প্রদায়িক এ উৎসবটি করেছি।

এই সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মীরসরাই প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম রহমান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বুলবুল আহম্মেদ, মীরসরাই শিল্পকলা একাডেমীর নৃত্যের শিক্ষক সাগর সেন, গানের শিক্ষক লক্ষন, তবলার শিক্ষক বাঁধন। পরে ‘মেঘবালিকার জন্য রূপকথা’ এবং নির্মলেন্দু গুণের ‘পনেরো পাঁচ চুরাশি’ আবৃত্তি করেন শিল্পকলা একাডেমীর সকল ছাত্র-ছাত্রী এই গানের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ করা হয়।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।