| |

পটিয়ায় বিভিন্ন সড়কে বেহাল দশা সামান্য বৃষ্টিতেই হাটু পানি, জনভোগান্তি

বাংলাদেশের জনপ্রিয় ও সর্বশেষ খবর পেতে আ্যপসটি ইনস্টল করুন

প্রকাশিতঃ 10:02 pm | May 20, 2018

পটিয়া (চট্টগ্রাম) থেকে সেলিম চৌধুরী : পটিয়া মুন্সেফ বাজার থেকে আবদুর রহমান গভ: গালর্স হাই স্কুল পর্যন্ত সড়কটি গত তিন দিনের বৃষ্টিতে সম্পূর্ণ চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এতে আবদুর রহমান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, খলিলুর রহমান মহিলা ডিগ্রী কলেজ, খলিলুর রহমান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, শশাংকমালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ক্যামব্রিয়ান স্কুল এন্ড কলেজ, অংকুর বিদ্যাপীঠ ও রামকৃষ্ণ মিশন এবং পটিয়া প্রেস ক্লাব এলাকা জুড়ে পানিতে সয়লাব হয়ে যায়। ফলে শিক্ষার্থী সহ সাধারণ মানুষের চলাচলে মারাত্মক দুর্ভোগের মুখে পড়েছে। এতে ভুক্তভোগীরা অবিলম্বে এ সড়কে নির্মিতব্য নালা ও সড়ক উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত করে জনভোগান্তি দূর করার জন্য কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছে।

জানা যায়, পটিয়া পৌরসভার উদ্যোগে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে প্রায় ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে এ সড়কে দৃষ্টিনন্দন ফুটপাত ও নালা এবং রাস্তা নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে। বর্তমানে রামকৃষ্ণ সেবাশ্রম থেকে মুন্সেফ বাজার পর্যন্ত নালা নির্মাণে ধীরগতির ফলে পটিয়ার পূর্বাঞ্চলের বৃষ্টির পানি গুলো বাধাগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। এতে পুরো এলাকা জুড়ে স্থায়ী জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। বর্তমানে স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীরা ছাড়াও সাধারণ মানুষকে জমে থাকা পানির কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এব্যাপারে স্থানীয় অধিবাসী পৌর আ’লীগের সাবেক সহ-সভাপতি বিমল মিত্র বলেন, এটি একটি জন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে শত শত স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থী ছাড়াও সাধারণ মানুষ চলাচল করে থাকে। আমরা জনস্বার্থে অবিলম্বে সড়কটির নির্মিতব্য নালার কাজ দ্রুত সমাপ্ত করার দাবি জানাচ্ছি। স্থানীয় অধিবাসী নজরুল ইসলাম বিপ্লব বলেন, সড়কটি জনগুরুত্বপূর্ণ হলেও কচ্ছপ গতিতে এর কাজ এগিয়ে চলায় দিন দিন জনগণের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হচ্ছে। আমি এলাকার একজন অধিবাসী হিসেবে জনগণের ভোগান্তি দেখে তা আর সহ্য করতে পারছি না।

বর্ষা এখন শুরু হয়েছে। যদি দ্রুত পানি নিষ্কাশনের উদ্যোগ না নেওয়া হয় তাহলে পুরো সুচক্রদন্ডী এলাকা পানিতে ভাসবে। বঙ্গবন্ধু শিশু কল্যাণ ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি স্থানীয় বাসিন্দা মাহবুবুল আলম বলেন, বর্তমানে পটিয়া পৌর শহরে চলমান উন্নয়ন কর্মকান্ড গুলো বিচ্ছিন্নভাবে পরিচালিত হওয়ায় জনগণের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। আমরা দাবি জানাবো যেন পরিকল্পিত উন্নয়ন কর্মকান্ড করা হয়। অন্যথায় জন ভোগান্তি থেকে জনগণের মুক্তি মিলবে কিনা সংশয় রয়েছে।

এব্যাপারে পটিয়া পৌরসভার মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশিদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমরা এ সড়কে নির্মিতব্য নালা ও সড়কের কাজ দ্রুত এগিয়ে নিতে ঠিকাদারকে তাগাদা দিয়ে আসছি। যাতে জন ভোগান্তি না হয় সেদিকে আমাদের নজর রয়েছে।

বর্তমানে যে কার্যক্রম চলছে তা জনগণের কল্যাণেই করা হচ্ছে। তাই কোথাও যদি জনগণের সাময়িক অসুবিধা হয় তা এ কার্যক্রমগুলো বাস্তাবায়িত হলে আর কখনো ভোগান্তির সম্মুখিন হতে হবে না। তাই আমরা আশা করবো জনগণ আমাদের পরিচালিত উন্নয়ন কর্মকান্ডগুলো এগিয়ে নিতে সহযোগিতা প্রদান করবেন।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!