| | মঙ্গলবার, ৫ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী |

পোশাক শ্রমিকদের সর্বনিম্ন মজুরি ১৮ হাজার টাকা চান তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ ৩:৩৫ অপরাহ্ণ | মে ০১, ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টার : পোশাক খাত শ্রমিকদের সর্বনিম্ন মজুরি ১৮ হাজার টাকা করার দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ৪ লাখ কোটি টাকার বাজেটে ১৮ হাজার টাকা কিছু না।

মঙ্গলবার রাজধানীর জিরো পয়েন্ট সংলগ্ন জাসদের কার্যালয়ের সমানে জাতীয় শ্রমিক জোট আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, মজুরি বোর্ড গঠন হয়েছে। শ্রমিকদের দাবি ন্যূনতম মজুরি ১৮ হাজার টাকা করা। জাসদের পক্ষ থেকে আমরা এ দাবি সমর্থন করলাম। শুনতে বড় লাগে কিন্তু ৪ লাখ কোটি টাকার বাজেটে ১৮ হাজার কিছু না। আমরা কারখানা রক্ষা করতে চাই, শ্রমিকদেরও হাসি মুখে রাখতে চাই।

এ সময় মে দিবসের কি অঙ্গীকার হওয়া উচিত তাও জানিয়ে দেন তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘এবারের মে দিবসের অঙ্গীকার হোক ন্যূনতম মজুরি নিশ্চিত করার একটি স্থায়ী ব্যবস্থা হোক, সুস্থ শ্রমিক মালিক সম্পর্ক হোক, নিরাপত্তা হোক, মর্যাদা পাই, সম্মান হোক এবং শ্রমিকরা হাসি-খুশি থাক।’

শ্রমিকদের বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখন শ্রমিকদের সবকিছু সম্মানজনক হয়নি। বাংলাদেশে শ্রমিক-কর্মচারীদের গুরুত্বপূর্ণ সমস্যাগুলো হচ্ছে- নিরাপত্তা ও আবাসনের সমস্যা। তারপর উপযুক্ত মর্যাদার সমস্যা। এরপর উপযুক্ত মর্যাদাপূর্ণ মজুরি।

‘এখন গ্রাম, শহরে সবখানেই নারী শ্রমিক কাজ করে। প্রায় ৪৫ লাখ নারী শ্রমিক রয়েছে। সুতরাং নারী শ্রমিকদের সমস্যা আছে। তাদের জন্য দরকার নিরাপত্তা, মাতৃত্বকালীন ছুটি, সম্মান, মর্যাদা এবং সমকাজের সম মজুরি নিশ্চিত করা’ বলেন জাসদের এই নেতা।

তিনি বলেন, নারী শ্রমিকদের রাস্তা-ঘাটা চলাচলে নিরাপত্তার সমস্যা আছে। শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত না করা পর্যন্ত ভালো শিল্পায়ন হয় না। তাই আমরা বলি উৎপাদন বাড়াতে হলে শ্রমিকদের হাসিমুখে রাখতে হবে। উপযুক্ত সম্মানজনক মজুরি দিতে হবে। মনে রাখতে হবে শ্রমিকরা হাসিখুশি থাকলে, মর্যাদাপূর্ণ মজুরি পেলে উৎপাদন বাড়বে, শিল্পাঞ্চল ভালো থাকবে, দেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, উন্নতি করতে হলে শান্তি দরকার। আর সেই শান্তি নিশ্চিত করতে হলে দুর্নীতি, লুটপাট বন্ধ করতে হবে। তেমনি জঙ্গিবাদী তেতুল হুজুরদেরও বাংলাদেশের রাজনীতির বাইরে রাখতে হবে। জঙ্গি-সন্ত্রাসীরা নারী শ্রমিকের শত্রু, শ্রমিক সমাজের শত্রু, বাংলাদেশের শত্রু, গণতন্ত্রের শত্রু।

‘তাই শ্রমিক সমাজের দায়িত্ব নারী শ্রমিকদের রক্ষা, কারখানা রক্ষা করতে একদিকে যেমন উপযুক্ত মজুরি গ্রহণ করতে হবে, আর একদিকে জঙ্গি-সন্ত্রাসীদের দেশ ছাড়া করতে হবে। এটা আপনাদের কাজ। সেই কাজে জাসদ আপনাদের পাশে রাজপথে, সংসদে এবং মন্ত্রী পরিষদে থাকবে’ বলেন ইনু।

শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, শ্রমিকের ভাগ্য লুটেরাদের কাছে জিম্মি করতে চাই না। সে জন্য আমরা বলি সমাজতন্ত্রের পথে হাটো, দুর্নীতি দূরে রাখো এবং শ্রমিকদের হাসিমুখে রাখো।

Matched Content

দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares