| |

চাঁপাইনবাবগঞ্জ চক্ষু হাসপাতাল নিয়ে ষড়যন্ত্রের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিতঃ 10:01 pm | April 26, 2018

ফয়সাল আজম অপু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে : সেবামূলক সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধকল্যাণ সমিতি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখা ও চক্ষু হাসপাতালের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ২০১৮-২০২০ মেয়াদের নির্বাহী কমিটির আয়োজনে জেলা সদরের শান্তিমোড় এলাকার হোটেল আল-নাহিদের কনফারেন্স রুমে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন, নির্বাহী কমিটির সাধারন সম্পাদক আব্দুল হাকিম। এছাড়াও লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী একেএম খাদেমুল ইসলাম।

আবদুল হাকিম তার বক্তব্যে বলেন, সংগঠনের নিয়ম মেনেই আমাকে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়েছে। বিগত চারটি মেয়াদে যেভাবে নির্বাচন হয়েছে একই প্রক্রিয়ায় আমি এ সংগঠনটির সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছি। বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধকল্যাণ সমিতির সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেনকে ভুল বুঝিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে আরও একটি কমিটি অনুমোদন নিয়েছে প্রফেসর সুলতানা রাজিয়া গং। এরা একটি রাজনৈতিক সংগঠনকে ব্যবহার করে সামাজিক এই সংগঠনটিকে গ্রাস করার পায়তারা করছে।

কেউ যদি এ প্রতিষ্ঠানটিকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলে তাদের ছাড় দেওয়া হবেনা। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি হিসেবে এটিকে রক্ষা করা আমার নৈতিক দায়িত্ব । এ প্রতিষ্ঠানটিকে যারা কঠোর পরিশ্রম করে গড়ে তুলেছেন তাদের অবজ্ঞা করে একটি স্বার্থান্বেষী মহল প্রভাব বিস্তার করে নিজেদের কব্জায় নেওয়ার পায়তারা করছে। তিনি বলেন, গতকাল সকালে সুলতানা রাজিয়া গং চক্ষু হাসপাতালে অনুপ্রবেশ করে দ্বায়িত্বরতদের কাছ থেকে জোর করে হাসপাতালের সমস্ত চাবি নিয়ে নিজ হেফাজতে রাখেন। এ সময় জেলা প্রশাসকের নাম ভাঙ্গিয়ে তিনি (রাজিয়া সুলতানা) চাবি নেন বলে মন্তব্য করেন। রাজিয়া সুলতানা ও অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সাইদুর রহমানের নেতৃত্বে চক্ষু হাসপাতালে ভাংচুর করেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এ ঘটনায় জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী একেএম খাদেমুল ইসলাম তার লিখিত বক্তব্যে বলেন- জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতি ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ চক্ষু হাসপাতাল রক্ষার নামে একটি সংগঠন তৈরী করে মতবিনিময়ের নামে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করা হয়েছে। ২১ এপ্রিল চাঁপাইনবাবগঞ্জ আইনজীবি সমিতি ভবনে আয়েজিত সুধী সমাবেশে আমার বিরুদ্ধে ফ্লুইড দিয়ে নাম পরিবর্তন, অনিয়ম ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ করা হয়েছে।

তিনি তার বিরুদ্ধে করা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কোন সদস্য আমার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেনি। এছাড়াও ১ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করা হয়েছে যা সম্পূর্ণ ভিক্তিহীন ও কাল্পনিক। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সাধারণ সম্পাদকের আর্থিক কোন সংশ্লিষ্টতা নেই ফলে আর্থিক কেলেংকারীর সাথে আমি কোন ভাবেই জড়িত নই। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দকৃত অর্থ একটি নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার মাধ্যমে গ্রহণ করা হয়ে থাকে। এতে সমিতির ৯জন সদস্য, সিভিল সার্জন এবং ১জন হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সংশ্লিষ্ট থাকে।

এখানে এককভাবে কারো অর্থ আত্মসাতের সুযোগ কোন নেই। তিনি বলেন, সমিতির সকল কার্যক্রম প্রতি বছর প্রতিবেদন আকারে প্রকাশিত হয়ে থাকে এবং তা নির্বাহী কমিটি ও পরবর্তীতে সাধারণ সভা কর্তৃক অনুমোদিত হয়ে থাকে। একই ভাবে সমিতি ও চক্ষু হাসপাতালে বার্ষিক আয় ব্যয় হিসাব সহ নিরীক্ষা প্রতিবেদন উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রণয়ন সহ সাধারণ সভায় অনুমোদন হয়ে থাকে। ১০/১১/২০০০ সাল থেকে ৩০/০৬/২০১৭ খ্রীঃ পর্যন্ত প্রণীত ও অনুমোদিত বার্ষিক প্রতিবেদন, আয়-ব্যয় হিসাব এবং নিরীক্ষা প্রতিবেদন সংরক্ষন রয়েছে ।

এগুলো পর্যবেক্ষণ ও অবলোকন করলেই বিষয়গুলি আরও স্পষ্ট হবে যে, সাধারণ সম্পাদক র্অথাৎ আমার বিরুদ্ধে উক্ত সময় পর্যন্ত কোন ধরণের অভিযোগ উত্থাপিত হয়নি। সমিতির প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ১২৪ টি নিবার্হী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে যার একটিতেও আমার বিরুদ্ধে কোন প্রকার অভিযোগ নেই।
উল্লেখ্য- বিগত ৫ মাস থেকে বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার নেতৃত্ব নিয়ে বিবাদ চলছে। চলমান বিবাদ নিরসনের লক্ষে লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে বিষয়টি তদন্ত করেছেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলমগীর হোসেন।

তদন্ত প্রতিবেদনে স্থানীয় নির্বাচন অফিস ও কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপে নির্বাচনের সুপারিশ করা হয়েছে। তবে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশনা উপেক্ষা করে কেন্দ্র অনুমোদিত আহ্বায়ক প্রফেসর সুলতানা রাজিয়ার নের্তৃত্বে চক্ষু হাসপাতালে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশ করে। এসময় স্থানীয়দের বাধার মুখে পড়ে হাসপাতালের চাবি নিয়ে পালিয়ে যান সুলতানা রাজিয়া ও তার সহযোগীরা। এঘটনায় আব্দুল হাকিমকে বিবাদী করে সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।