| |

উন্নয়নের স্রোতধারায় নারীরাও অংশীদার : চুমকি

প্রকাশিতঃ 4:13 pm | March 10, 2018

স্টাফ রিপোর্টার : মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এমপি বলেছেন, ‘বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের স্রোতধারায়। নারীরাও এই উন্নয়নের অংশীদার।’

তিনি বলেন, দেশে অর্ধেক জনগোষ্ঠী হলো নারী। আবার নারীদের মধ্যে অর্ধেক কন্যাশিশু। তাই কন্যাশিশুরা আমাদের সম্পদ। এই কন্যাশিশুরা অল্পবয়সে বাল্যবিবাহের শিকার হয়ে আরেকজন শিশু কোলে নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে আমরা এমন দৃশ্য দেখতে চাই না।’

অভিভাবকদের উদ্দেশে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা কন্যাশিশুদের নিয়ে স্বপ্ন দেখুন। তারা অবশ্যই আপনাদের সেই স্বপ্ন পূরণ করবে।’ সরকার নারী ও কন্যাশিশুদের কল্যাণে যেসব পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করছে তার একটি বিবরণ তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন সংস্থা বাংলাদেশে বাল্যবিবাহের হার বেশি দেখালেও বিগত যে কোনো সময়ের তুলনায় বর্তমানে বাল্যবিবাহের হার অনেক কম। কারণ বাল্যবিবাহে বন্ধে সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা কাজ করছে। আমাদের কিশোরীরা এখন আগের তুলনায় অনেক সচেতন।’

জাতীয় কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরাম-এর উদ্যোগে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন উপলক্ষে শুক্রবার বাংলাদেশ শিশু একাডেমী-এর অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব কাজী রোজী এমপি। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর পরিচালক জনাব আনজীর লিটন। সূচনা বক্তব্য দেন জাতীয় কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরাম-এর সম্পাদক নাছিমা আক্তার জলি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নারীমেত্রীর নির্বাহী পরিচালক জনাব শাহীন আক্তার ডলি।

কাজী রোজী এমপি বলেন, ‘শিশু শুধু শিশু নয়, তারা অনেক কিছু। কারণ আমাদের শিশুরাই আগামী দিনের নাগরিক, আমাদের কন্যাশিশুরাই আগামী দিনের নারী কিংবা মা। তাই শিশুরাই দেশের সম্পদ ও ভবিষ্যৎ।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের নারীরা দেশের সব জায়গায় আছে। কিন্তু নারীদের আরও এগিয়ে যেতে হবে। এজন্য নিজেকে যোগ্য ও দক্ষ করে তুলতে হবে। নারী ও কন্যাশিশুদের অনুবাধন করতে হবে তুমি শক্তি, তুমিই বল, তুমিই কর্মফল।’

সূচনা বক্তব্যে জাতীয় কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরাম-এর সম্পাদক নাছিমা আক্তার জলি বলেন, ‘আমরা যদি নারীর জীবন বদলে দিতে চাই, তাহলে কন্যাশিশুদের জীবন বদলে দিতে হবে। কারণ কন্যাশিশুর মধ্য দিয়েই একজন নারীর জীবনের যাত্রা শুরু হয়। তাই কন্যাশিশুদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পুষ্টির অধিকার নিশ্চিত করতে হবে এবং বিরাজমান পুরুষতান্ত্রিক দৃষ্টিভঙ্গির অবসান ঘটাতে হবে।’

সভাপতির বক্তব্যে জনাব শাহীন আক্তার ডলি বলেন, ‘আমাদের নারীরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নতি করলেও তারা এখনো বিভিন্নভাবে নির্যাতনের শিকার। নারীদের প্রতি এই নির্যাতন আমরা মেনে নিতে পারি না।’ তিনি বলেন, ‘নারী-পুরুষ সমান্তরালে এগুলেই সমাজ ও রাষ্ট্র এগিয়ে যায়।’

এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকা থেকে জাতীয় জাদুঘরের সামনে থেকে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী পর্যন্ত এক র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালির উদ্বোধন ঘোষণা করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব মেহের আফরোজ চুমকি এমপি।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!