| |

কষ্টের অপর নাম পুলিশ, ছুটি এখন সোনার হরিণ

প্রকাশিতঃ 12:09 am | June 06, 2017

জাহিদুল ইসলাম জীবন : আন্তর্জাতিক শ্রম আইন অনুসারে কোন চাকুরী ৮ ঘন্টার বেশি হবেনা, তবে যদি শ্রমিক/কর্মচারি সেচ্ছায় করতে রাজি থাকে তাহলে তাকে মাসিক বেতন থেকে দেড় গুন বেতন দিতে হবে অতিরিক্ত সময়ের জন্য। এখন একটু ভাবুনতো পুলিশ কয়ঘন্টা ডিউটি করে? ১২ ঘন্টা অন স্পট, যাতায়াত সহ ১৩ ঘন্টা লাগে, প্রস্তুতি নিতে আরো এক ঘন্টা লাগে। অতিরিক্ত ৪/৬ ঘন্টার জন্য দেড়গুনতো দুরের কথা একটি পয়সাও পায়না। একজন গার্মেন্টস কর্মীও সেটা পায়। পুলিশ পায়না কেন? আসলে কি আর বলব এরাতো পুলিশ। তবুও কিছু সংখ্যক সমাজের মানুষের কাছে ঘুষ আর দূর্নীতি চোখে পড়ে বেশি।

বাংলাদেশে একমাত্র সরকারী আমলা বলতে একমাত্র পুলিশকে কেই বুজায়। মনে হয় পুলিশই শুধু মাত্র সরকারের বেতন নিয়ে থাকে। আর বাকি সব সরকারী চাকুরীজীবী`রা তাদের বেতন দেশের প্রয়োজনে সরকারী কোষাগারে জমা করে রাখে?
যেহেতু দেশের একমাত্র আমলা পুলিশই সেহুতু দেশকে রক্ষার একমাত্র গুরুদায়িত্ব পুলিশের উপরে বর্তায় বটে। সবাই যখন একটানা ০৯(নয়) দিন ঈদের ছুটি ভোগ করে পুলিশ তখন রাস্তায় ডিউটি করে।

নেই ঈদ, নেই পুজা, নেই পহেল বৈশাখ, নেই কোন বিনোদন ছুটি, নেই কোন সপ্তাহিক ছুটি, নেই বাৎসরিক ছুটি শুধু নাম মাত্র বছরে ২০ দিন নৈমিত্তিক ছুটি। তাও আবার সঠিক ভাবে দেয় না। ২০ দিনের মধ্য বছরে জোর-জুলুম করে ১০ দিন পাওয়াই দুস্কর ব্যাপার হয়ে দাড়ায়। তাহলে কিভাবে ঠিক থাকবে প্রায় লক্ষ লক্ষ পুলিশ সদস্যদের মন-মানষিকতা।
আর অন্য বাহিনীরা যেখানে দুই ঈদে ৫০% করে ভাগ করে ঈদের ছুটি তথা যে কোন বিনোদন মূলক ছুটি কাটায় আর পুলিশের সেখানে একটা ঈদ ও কপালে জোটে না। তারও ত মানুষ!

একজন ব্যাংকারের চাকুরীজীবি সাথে যদি তুলনা করি?
ব্যাংকার ৯ টা থেকে ৫ টা ডিউটি করে, পুলিশ করে ১২ ঘন্টা। ব্যাংকারের ছুটি সপ্তাহে দুইদিন অর্থাৎ বছরে ১০৪ শুক্র শনি, আর অন্যান্য ঈদ পূঁজা, নানান দিবস মিলিয়ে সর্বমোট ১৫০ দিন বাৎসরিক ছুটি। পুলিশের কয়দিন? ২০ দিন সিএল ছুটি। এর ১০ সারা বৎসরে পেলেও বাকি ১০ ছুটি থাকলেও ওসি সাহেবগন ছুটি ছাড়েননা বা ছাড়তে পারেননা। বলবে অফিসার নাই, ফোর্স নাই ইত্যাদি। তাহলে কি দেখা যায়… একজন ব্যাংকার ছুটি বাদে জব করেন ২১৫ দিন, আর পুলিশ জব করেন ৩৫৫ দিন। পুলিশের ১২ থেকে ১৪ ঘন্টার দিন আর ব্যাংকারের ৮ ঘন্টার দিন। বেতন স্কেল অনুসারে একই।
উপরের কলামটি পড়ে আপনাদের কি মনে হয় পুলিশের বেতন ঠিক আছে। পুলিশের কমপক্ষে ৬০ দিন ছুটি বাধ্যতামুলক করা হোক।? জনবল নিয়োগ করা হোক।

শিক্ষক সমাজ ক্লাস ছেরে আন্দোলন করছে, তাদের জন্য আলাদা আইন নেই কিন্তু পুলিশকে আলাদা আইন দারা আন্দোলনের পথকে রুখে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু মনের ভেতর না বলা কষ্ট। আর সে পুলিশ যদি একবার নিজেরা অান্দোলনে নামে তাহলে কি হবে বাংলাদেশের অাইন শৃঙ্খলা কেহ একবার কি ভেবে দেখেছে? মনে হয়তো এসব ভাবার কেহ নেই?

একজন পুলিশ কর্মকর্তার সাথে কথা বললে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হয়ে বলেন, এভাবেই চলতে থাকে আমাদের (পুলিশের)দিনক্ষন। এর মধ্যে কেটে যায় ঈদ, পূজা, ১লা বৈশাখ, ছোট বোনের বিয়ে, ছোট খোকার জন্ম দিন, নিজের বিবাহ বার্ষিকী ও আত্মীয় স্বজনের নানা অনুষ্ঠানের আনন্দগন মুহুর্ত গুলো।এর পিছনের একটি কারন পবিত্র দায়িত্ব। সবার কাছে থেকেও দুরের মানুষ আমি একজন পুলিশ।

আমাদের পুলিশের এতোটাই দায়িত্ব যে চোর, ডাকাত, ছিনতাইকারী, সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন অপরাধীদের পিছু ছুটে রাত্র যে কখন সকাল হয় আবার সকাল যে কখন রাত হয় তা বুঝাই মুশকিল।

মনে প্রচন্ড ইচ্ছা থাকা সত্বেও আমার প্রিয় স্ত্রী ও আদরের সন্তানকে বিশেষ মুহুর্ত গুলোতে সময় দিতে পারি না। আমি যখন ডিউটি ব্যস্ত থাকি তখন আমার আদরের ছোট্ট খোকা প্রায় সময়ই মোবাইল ফোনে মায়াবী কন্ঠে বলে উঠো বাবা তোমার সাথে বেড়াতে যাবো। সকালে তুমি স্কুলে নিয়ে যাবে। তুমি তাড়াতাড়ি আসো সন্ধ্যা হয়ে গেল কিন্তু।তখন ছোট্ট খোকার আবদারের কাছে আমি এক অসহায় বাবা? ডিউটির পোষ্ট ছেড়ে কি ভাবে তাকে নিয়ে ঘুরে বেড়াবো। তাই শান্তনার বানী শুনিয়ে আসি আসি করে আর আসা হয় না। এভাবে কেটে যায় রাতের পর রাত। আমি এমন একজন কর্মজীবি (বাবা) ডিউটির ব্যস্ততার কারনে আমার ছোট্ট খোকার সাথেও প্রতারনার আশ্রয় নিতে হয়।
উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত ভাবে কখনওবা সুস্থ্য মা-বাকে অসুস্থ বানিয়ে আবেদন পত্র জমা দিয়ে ছুটি মঞ্জুর করাতে হয়। তবুও অনেক সময় পাওয়া যায় না সে ছুটি জন্য। ছুটি যেন সোনার হরিণ।

ঈদ-পূজাঁসহ বিভিন্ন উৎসব আসলেই বৃদ্ধ বাবা-মা পথ চেয়ে থাকে কখন তার প্রিয় পুলিশ খোকা বাড়ী আসবে।
ঈদে বাসায় যাব সবাই অপেক্ষায় থাকে। তবুও যাওয়া হয় না এভাবে কথা গুলি বলে একটু কান্নাজড়িত ভাবে। হয়তো এসব লিখলে হবে না। তবুও যে আমাদের লিখতে হবে। কারণ পুলিশ এসমাজের লোক। তাই সর্বশেষ একটি কথা বলবো পুলিশকে ছুটি দিতে সরকারের সু-দৃষ্টি প্রয়োজন।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares