| |

চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্বাস্থ্য বিভাগে ব্যাপক জনবল সংকট!!

বাংলাদেশের জনপ্রিয় ও সর্বশেষ খবর পেতে আ্যপসটি ইনস্টল করুন

প্রকাশিতঃ 7:58 pm | December 26, 2017

ফয়সাল আজম অপু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিভিন্ন স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রের মত জনগুরুত্বপূর্ণ বিভাগে জনবলের ব্যাপক সংকট দেখা দিয়েছে। দীর্ঘদিন থেকে এ বিভাগে জনবল সংকটের কারনে কাঙ্খিত সেবা প্রদানে ব্যার্থতার দেখা মিলেছে। প্রায় এক যুগ ধরে কাঙ্খিত সেবা পাচ্ছেনা ভুক্তভোগীরা।

বিভিন্ন খাতে সরকারের দৃশ্যমান উন্নয়ন লক্ষ করা গেলেও জনবল সংকট নিরসনে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নেই সংশ্লিষ্টদের। উন্নয়ন যতই গতিশীল হচ্ছে বিপরীতে ততটাই জনবল সংকটের প্রভাব প্রকট আকার ধারন করছে। এসব প্রতিষ্ঠানে সেবা প্রার্থীদের মধ্যে বাড়ছে ক্ষোভ, গড়ে উঠছে অভিযোগের পাহাড়। একাধিক স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান সূত্রে পাওয়া তথ্য ও সরেজমিন তদন্তে এসবের প্রমান মিলেছে। নিজেদের স্বার্থে দ্রুত সংকট সমাধান জরুরী বলে মনে করছেন বিশিষ্ঠজনরা।

২০০৩ সালে ৫০ শয্যার চাঁপাইনবাবগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতাল ১০০ শয্যায় উন্নিত হওয়ার ১৪ বছরেও জনবলে আসেনি দৃশ্যমান পরিবর্তন। ১০০ শয্যার সদর হাসপাতালটি ২৫০ শয্যায় উন্নিত করনের লক্ষে ২৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যায়ে ৮ তলা ভবন নির্মানের কাজ চলমান। জেলার আধুনিক সদর হাসপাতালটিতে জনবল সংকটের কারনে প্রতিদিনই হয়রানি হচ্ছে চিকিৎসা সেবা প্রার্থীরা। সেবা বঞ্চিতদের মধ্যে বাড়ছে ক্ষোভ আর হতাশা। রোগীদের দীর্ঘশ্বাসে ভারি হয়ে উঠছে হাসপাতাল চত্তর।

অন্যান্য উপজেলার স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানগুলোতে জনবল সংকট আরো তীব্র। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, জেলা সদরের আধুনিক সদর হাসপাতালটিতে অনুমোদিত ২১ জনের মধ্যে ১২ চিকিৎসক কর্মরত, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অনুমোদিত ১৮ জনের মধ্যে কর্মরত মাত্র ৫জন, শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অনুমোদিত ৩৭ জনের মধ্যে বর্তমানে কর্মরত রয়েছে মাত্র ১২জন, নাচোল উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অনুমোদিত ১৩ জনের মধ্যে বর্তমানে কর্মরত রয়েছে ৬জন, ভোলাহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অনুমোদিত ১৪ জনের মধ্যে বর্তমানে কর্মরত রয়েছে মাত্র ৫জন, গোমস্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অনুমোদিত ১৮ জনের মধ্যে বর্তমানে কর্মরত রয়েছে মাত্র ১০জন চিকিৎসক। এছাড়াও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় মোট ৪৬টি ইউনিয়নে আলাদা আলাদা স্বাস্থ্যকেন্দ্র রয়েছে।

জানা গেছে এসব স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে কাঙ্খিত সেবা পাচ্ছেন না এলাকাবাসী নিয়োগপ্রাপ্ত ডাক্তার সেখানে না যাওয়ার অভিযোগও রয়েছে। চিকিৎসক সংকটে একাধিক ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র এখন পরিত্যক্ত ভবন। অপর্যাপ্ত জনবল দিয়ে খুড়িয়ে খুড়িয়ে চলছে জেলার স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানগুলো।

জনবল সংকটের বিষয়টি স্বীকার করে সিভিল সার্জন জানান, ১৮ডিসেম্বর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জনবল সংকটের বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) চাঁপানবাবগঞ্জ জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা. নাহিদ ইসলাম মুন জানান, চিকিৎসক সংকটে দূর্ভোগ জনসাধারনের, ফলে জনপ্রতিনিধি হিসেবে সংসদ সদস্যকেই সংকট সমাধানে দায়িত্বশীল হতে হবে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে বারবার তাগিদ করে চিকিৎসক নিয়ে আসতে হবে। জনগুরুত্বপূর্ণ এই প্রতিষ্ঠানটির সংকট সমাধান জরুরী বলে মনে করেন এই চিকিৎসক।

এ বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ শিবগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম রাব্বানী জানান, স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত সরকারের একটি বড় চ্যালেঞ্জ। কাঙ্খিত স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতের লক্ষে আগামী ২৭ ডিসেম্বর অত্র উপজেলার চিকিৎসকদের নিয়ে একটি মত বিনিয়ম সভার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সভা থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে চাহিদা জানাবো।

এ ছাড়াও মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করবো যাতে দ্রুত সংকট সমাধান করা হয়। এব্যাপারে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল ওদুদ বিশ্বাস জানান, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে চাহিদাপত্র দেওয়া হয়েছে পরবর্তী বিসিএস থেকেই প্রয়োজনীয় চিকিৎসক পাওয়া যাবে বলে আশা করছি।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!