| |

জেলে না গেলেই নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন পুজেমন

বাংলাদেশের জনপ্রিয় ও সর্বশেষ খবর পেতে আ্যপসটি ইনস্টল করুন

প্রকাশিতঃ 1:06 pm | October 30, 2017

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার ঘোষণার পর ওই অঞ্চলের স্বায়িত্ব শাসন কেড়ে নিয়ে আঞ্চলিক সরকার ভেঙে দিয়েছে স্পেন। একই সঙ্গে কাতালোনিয়ার নেতা কার্লেস পুজেমনকে তার পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। তবে সরকারের তরফ থেকে বলা হয়েছে যে, পরবর্তী নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন পুজেমন। খবর বিবিসি।

কাতালোনিয়ার পুলিশ প্রধানকে সরিয়ে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে। এদিকে, স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সরকারের অবস্থানকে পুণরায় ব্যক্ত করে বলেছেন, ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য নতুন নির্বাচনে পুজেমন অংশ নিতে পারবেন। তবে এখানেও একটি শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে। জেলে না গেলেই নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন তিনি।

স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলফোনসো দাসতি কাতালোনিয়ার সবচেয়ে বড় শহর বার্সেলোনায় এক বিশাল সমাবেশে ভাষণ দিয়েছেন। স্পেনের ঐক্যের পক্ষে ওই সমাবেশে দলে দলে মানুষ যোগ দেন।

শুক্রবার স্বাধীনতার ঘোষণা দেয়ার পরপরই স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাজয় পুজেমনকে বরখাস্ত করে ডিসেম্বরের মধ্যেই নতুন নির্বাচনের ঘোষণা দেন। কাতালোনিয়ার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার।

স্পেনের আইনভঙ্গের অভিযোগে পুজেমন এবং কাতালোনিয়ার অন্যান্য কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অপরাধের অভিযোগ আনার প্রস্তুতি নিচ্ছেন দেশটির প্রধান প্রসিকিউটর।

তবে মাদ্রিদের আদেশ মানবেন না এবং কেন্দ্রীয় সরকারের চাপে নিজের দায়িত্বও ছাড়বেন বলে জানিয়েছেন পুজেমন।

স্কাই নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী দাসতি বলেন, আমরা কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন কেড়ে নিচ্ছি না বরং আমরা তা পুনঃপ্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছি।

চলতি মাসের এক তারিখে স্বাধীনতার পক্ষে গণভোটে অংশ নেয় কাতালোনিয়ার জনগণ। ৪৩ ভাগ ভোটার ওই গণভোটে অংশ নেয় এবং স্বাধীনতার পক্ষে ভোট দিয়েছে প্রায় ৯০ ভাগ মানুষ। কিন্তু কাতালোনিয়ার গণভোটকে অবৈধ হিসেবে উল্লেখ করে স্পেনের পার্লামেন্ট।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!