| |

মদনে হাঁসের বাচ্চা ফুটিয়ে স্বাবলম্বী ইয়াসিন মিয়া

প্রকাশিতঃ 10:46 am | May 17, 2017

মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি : তোষ ও হারিকেনের আলোতে হাঁসের বাচ্চা ফুটিয়ে স্বাবলম্বী হয়েছেন মদন উপজেলার তিয়শ্রী ইউনিয়নের কুঠুরীকোনা গ্রামের ইয়াসিন মিয়া। তিনি এখন ওই ইউনিয়নের অনেকের কাছেই দরিদ্র জয়ের দৃষ্টান্ত।

এক সময় সে কাজের সন্ধ্যানে এদিক-সেদিক ঘুরে বেড়াত। বড় ভাই হাদিস মিয়ার উৎসাহ উদ্দীপনা পেয়ে তার সহযোগীতায় প্রথম তোষ ও হারিকেনের আলোর পদ্ধতিতে এক হাজার ডিম কিনে বাচ্চা ফুটিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে তা বিক্রি করে।

এভাবে এ পদ্ধিতে উৎপাদন বাড়াতে শুরু করেন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে পাইকারি ও খুচরা ক্রেতা তার নিকট থেকে এক দিনের বয়সের হাসের বাচ্চা কিনে বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ করতে থাকে।

বাংলাদেশ প্রাণি গবেষনা কেন্দ্রসহ সরকারি-বেসরকারি প্রতিনিধি দল তার এই পদ্ধতি পরিদর্শণ করে তাকে পরামর্শ দিয়ে এভাবে আরো লাভবান হওয়ার সহযোগিতা প্রদান করে। ইয়াসিন মিয়ার অভিজ্ঞতার জন্যে বাংলাদেশ প্রাণি সম্পদ গবেষনা কেন্দ্র ও মেঘালয় বেসিন ডেভেলপমেন্ট অর্থরীটি(এমবিডিঅ) ইন্ডিয়া অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক হিসাবে সনদপ্রত্র প্রদান করেন।

তোষ ও হারিকেনের আলোয় ডিম থেকে বাচ্চা ফোটানোর পদ্ধতি শিক্ষা গ্রহণ করার জন্য ইতি পূর্বে ভারতের মেঘালয় ও নেপালে তাকে নিমন্ত্রণ করে নিয়ে ৪/৫শ হাঁস খামাড়ি প্রশিক্ষণ নেয়। বর্তমানে তিনি এ পদ্ধতিতে প্রতিদিন ৩/৪হাজার হাঁসের বাচ্চা ফোটাচ্ছেন এবং তা নিজ জেলাসহ ঢাকা, চট্রগ্রাম, বরিশাল, সিলেট ও দেশের সবকটি বিভাগের পাইকাররা এ বাচ্চা সরবরাহ করছে।

এ পদ্ধিতিতে হাঁসের বাচ্চা ফুটিয়ে ইয়াসিন মিয়া এখন স্বাবলম্বী। উপজেলার কুঠুরীকোনা গ্রামের মৃত আক্কেল আলীর ছেলে মোঃ ইয়াসিন মিয়া স্ত্রী, তিন ছেলে ও দুই মেয়ে নিয়ে সাত সদস্যের পরিবার। তিনি উপজেলা প্রাণি সম্পদ বিভাগ ও বাংলাদেশ প্রাণী সম্পদ গবেষনা কেন্দ্রের পরামর্শে এ পদ্ধতিতে ডিম থেকে হাঁসের বাচ্চা ফোটিয়ে তার ভাগ্যের পরিবর্তন এনেছেন।

উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার মামুনুর রহমান জানান, এ পদ্ধতিতে স্বাবলম্বী ইয়াসিন মিয়া কে অনুসরণ করে এ গ্রামে বর্তমানে ১৩০টি পরিবার এই পদ্ধতিতে হাঁসের বাচ্চা ফুটিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছে। জেলার মধ্যে কুঠুরীকোনা গ্রামটি তোষ পদ্ধতিতে হ্যাচারী পল্লী হিসাবে অতিপরিচিত। দেশীয় এ পদ্ধতিতে কম করচে অধিক লাভবান হতে পারছে প্রতিটি পরিবার।


দৈনিক সময় সংবাদ ২৪ ডট কম সংবাদের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি,আলোকচত্রি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে র্পূব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সর্ম্পূণ বেআইনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে কোন কমেন্সের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।


Shares
error: Content is protected !!